প্রথম ভারত গৌরব ট্যুরিস্ট ট্রেন চালু হচ্ছে ২১ জুন, যাবে নেপালের জনকপুরেও

দিল্লি: রামায়ণ সার্কিটে প্রথম ভারত গৌরব ট্যুরিস্ট ট্রেন চালু হতে চলেছে ২১ জুন। আইআরসিটিসি-র স্বদেশ দর্শন প্রকল্পের আওতায় এই ভারত গৌরব ট্যুরিস্ট ট্রেন চালু করা হচ্ছে।

রামায়ণ সার্কিটে রামের জীবনের সঙ্গে জড়িত বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে যাওয়া হবে। নেপালের জনকপুরও এই সার্কিটের আওতায় পড়ে। ভারত গৌরব ট্যুরিস্ট ট্রেন সেখানকার বিখ্যাত রাম জানকী মন্দির দেখিয়ে আনবে।

১৮ দিনের সফরসূচি এই ভারত গৌরব ট্যুরিস্ট ট্রেনের। এর মধ্যে কিছুটা সড়কযাত্রাও রয়েছে। ট্রেন ছাড়বে দিল্লি থেকে।

কোথায় কোথায় যাবে

প্রথমে ট্রেন যাবে রামের জন্মভূমি অযোধ্যায়। প্রথম দেখানো হবে শ্রী রাম জন্মভূমি মন্দির। তার পরে হনুমান মন্দির এবং নন্দীগ্রামে ভারত মন্দির।

এর পর ট্রেন পৌঁছে যাবে বিহারের বক্সারে। এখানে পর্যটকরা মহর্ষি বিশ্বামিত্রের কুটির দেখতে পাবেন। এবং তার সঙ্গে দেখবেন রামরেখা ঘাট। পরবর্তী গন্তব্য সীতার জন্মভূমি সীতামাড়ি। এর পরেই নিয়ে যাওয়া হবে নেপালের জনকপুরে। জনকপুর দেখিয়ে ট্রেন ফিরে আসবে বারাণসীতে। এখানকার মন্দিরগুচ্ছ দেখবেন পর্যটকরা। এখান থেকেই গাড়িতে ঘুরিয়ে আনা হবে ‘সীতা সমাহিত স্থল’, প্রয়াগ, শ্রীংবেরপুর এবং চিত্রকূট। 

ভারত গৌরব ট্যুরিস্ট ট্রেনের পরবর্তী গন্তব্য নাসিক। নাসিকেই রয়েছে রামায়ণের পঞ্চবটী। এখানে পর্যটকরা দেখে নেবেন পঞ্চবটী ও ত্র্যম্বকেশ্বর মন্দির। এর পর ট্রেন চলে যাবে হসপেট। হসপেটের কাছেই রয়েছে হাম্পি, যা রামায়ণের সময় ছিল কিষ্কিন্ধ্যা – সুগ্রীব-বালির রাজ্য।

ভারত গৌরব ট্যুরিস্ট ট্রেনের পরের গন্তব্য রামেশ্বরম। এখানে পর্যটকরা দেখবেন বিখ্যাত রামনাথস্বামী মন্দির। ঘুরে আসবেন ধনুষ্কোডি থেকে। এক সময়ে এই ধনুষ্কোডি থেকেই ফেরি ধরে পক প্রণালী পার হয়ে পৌঁছে যাওয়া যেত শ্রীলঙ্কা বা রামায়ণের লঙ্কা।

এর পরে ট্রেন যাবে কাঞ্চিপুরম। এখানকার দ্রষ্টব্য শিবকাঞ্চি, বিষ্ণুকাঞ্চি ও কামাখ্যী মন্দির। সর্বশেষ গন্তব্য ‘দক্ষিণের অযোধ্যা’ নামে খ্যাত তেলঙ্গানার ভদ্রাচলম।

কত খরচ পড়বে

১৮ দিনে প্রায় ৮ হাজার কিলোমিটার পরিক্রমা শেষ করে ভারত গৌরব ট্যুরিস্ট ট্রেন ফিরে আসবে দিল্লিতে।  

এই প্যাকেজ ট্যুরে মাথাপিছু খরচ পড়বে ৬২৩৭০ টাকা। এর মধ্যে এক এক জনের সব রকম খরচ ধরা আছে। প্রথম ১০০টা বুকিং-এ আইআরসিটিসি ১০% ছাড় দেবে।

ছবি: রাম জানকী মন্দির, জনকপুর, নেপাল। twitter থেকে নেওয়া।

আরও পড়তে পারেন

আর হেঁটে চড়াই ভাঙা নয়, কাদ্দুখাল থেকে রোপওয়েতে চলুন সুরখণ্ডা দেবী দর্শনে

ট্রেকিং-এর নতুন গন্তব্য: মুন্নারের কাছে মিসাপুলিমালা

সেলফি নেওয়া, ছবি তোলা, ভিডিও করা মানা গঙ্গাসাগরে কপিলমুনি মন্দিরে

আরও পড়তে পারেন

Leave a Reply

Your email address will not be published.