আনলকে চলুন: ডুয়ার্সের টিলাবাড়ি

  • by

ভ্রমণঅনলাইন ডেস্ক: করোনাভাইরাস জনিত লকডাউনের জেরে প্রায় ভেঙে পড়া অর্থনীতির হাল কিছুটা ফেরাতে এখন শুরু হয়েছে আনলক পর্ব। বিভিন্ন ক্ষেত্রে কড়াকড়ি শিথিল করা হচ্ছে।

আনলক পর্বের সুযোগে পর্যটন শিল্পকে কিছুটা স্বমহিমায় ফেরাতে উদ্যোগী হয়েছে পশ্চিমবঙ্গও। তারই অঙ্গ হিসাবে গত ৮ জুন থেকে খুলে দেওয়া হয়েছে রাজ্য পর্যটনের পাঁচটি ট্যুরিস্ট লজ। রাজ্য পর্যটনের যে পাঁচটি ট্যুরিস্ট লজ খুলেছে তার মধ্যে অন্যতম ডুয়ার্সের টিলাবাড়ি। ট্যুরিস্ট লজ যখন খুলে গেছে, তখন এই আনলক পর্বেই চলুন না, ক’টা দিন কাটিয়ে আসা যাক টিলাবাড়ি থেকে।

টিলাবাড়ির পথে।

উপভোগ করুন

এমনিতে ডুয়ার্সে বর্ষা অফ-সিজন। ১৫ জুন থেকে ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত জঙ্গল বন্ধ থাকে। কিন্তু ডুয়ার্সকে যদি সত্যিই তার আসল রূপে দেখতে হয়, তা হলে বর্ষার তুলনা নেই। সবুজ প্রকৃতি এই সময়ে যে অপরূপ সাজে সেজে ওঠে, তা দেশের খুব কম জায়গায় গেলে দেখা যাবে। যদি খুব বেশি ঘোরাঘুরি করতে না চান, যদি রিসর্টের বারান্দায় আয়েশ করে বসে বৃষ্টি পড়া উপভোগ করতে চান, প্রকৃতি-মাকে দু’ চোখ ভরে দেখতে চান, তা হলে বর্ষায় আপনার গন্তব্য হোক ডুয়ার্স।

ঘোরাঘুরি

রিসর্টেই বসে থাকতেই হবে, এমন মাথার দিব্যি কেউ দেয়নি। ঘোরাঘুরি করুন।

(১) মাত্র ৭ কিমি দূরে মূর্তি। মূর্তি নদীর পাড়ে বসে প্রকৃতি দেখুন বা জলে দাপাদাপি করে আনন্দ ভাগ করে নিন।

(২) লাটাগুড়ি পেরিয়ে ময়নাগুড়ি হয়ে চলে যান জল্পেশ মন্দিরে, ৩৮ কিমি। দেখুন অদ্ভুত স্থাপত্যের প্রাচীন মন্দির। দর্শন করে আসুন জল্পেশ লিঙ্গ। আবহাওয়া ভালো থাকলে জল্পেশ মন্দিরের চত্বর থেকে পেয়ে যাবেন কাঞ্চনজঙ্ঘাকে।

ঝালং।

(৩) প্রথমে চলুন সামসিং হয়ে সুনতালেখোলা (২৯ কিমি), সেখান থেকে রকি আইল্যান্ড (৫ কিমি)। এর পর চলুন গৈরিবাস হয়ে ঝালং (১৮ কিমি), সেখান থেকে চলুন তোদে তাংতা (১৮ কিমি)। এর পর বিন্দু (২২ কিমি)। বিন্দু থেকে ফিরে আসুন টিলাবাড়িতে, দূরত্ব ৪৯ কিমি।

(৪) আর এক দিন যেতে পারেন সুখারেতি নদী পেরিয়ে ভুটান সীমান্তে ডায়ানা নদীর ধারে চামুর্চি ইকো পার্কে, দূরত্ব ৩৯ কিমি। তবে বর্ষায় সুখারেতি প্লাবিত হয়ে যেতে পারে। খোঁজখবর নিয়ে নেবেন।

কী ভাবে যাবেন

আনলক পর্বে আপাতত একটি ট্রেন চলছে কলকাতা থেকে। পদাতিক এক্সপ্রেস ট্রেনটি এখন রোজ চলছে শিয়ালদহ-নিউ কোচবিহার স্পেশ্যাল হিসাবে। শিয়ালদহ থেকে ছাড়ে রাত্রি ১১টায়, জলপাইগুড়ি রোড পৌঁছোয় সকাল ১০.১৮ মিনিটে। সেখান থেকে টিলাবাড়ি ৩৬ কিমি। ভাড়া গাড়ি পেয়ে যাবেন।

এ ছাড়াও কলকাতার এসপ্ল্যানেড থেকে বাস পেয়ে যাবেন শিলিগুড়ি তেনজিং নোরগে বাসস্ট্যান্ড পর্যন্ত। বাসের জন্য অনলাইন বুকিং redbus.in। শিলিগুড়ি থেকে টিলাবাড়ি ৭১ কিমি। বাসস্ট্যান্ডের বাইরে থেকে ভাড়া গাড়ি পেয়ে যাবেন।

সামসিং হয়ে সুনতানেখোলার পথে।

কোথায় থাকবে

আপনাকে স্বাগত জানানোর জন্য তৈরি টিলাবাড়িতে পশ্চিমবঙ্গ পর্যটন নিগমের তিলোত্তমা ট্যুরিজম প্রপার্টি প্রস্তুত হয়ে আছে। অনলাইন বুকিং: https://wbtdcl.com/।

মনে রাখুন

মাস্ক পরা, শারীরিক দূরত্ব রাখা ইত্যাদি সমস্ত রকম স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।

আরও পড়ুন: আনলকে চলুন: ঝাড়খণ্ড সীমানায় মাইথন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।