রথযাত্রার দিন খুলছে তারাপীঠ মন্দির

  • by

ভ্রমণঅনলাইন ডেস্ক: আগামী ২৩ জুন (মঙ্গলবার) রথযাত্রার দিন খুলবে তারাপীঠ মন্দির, সিদ্ধান্ত নিল মন্দির কমিটি। কিছুটা দোলাচলে থাকার পর শনিবার মন্দির কমিটির বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

প্রথম ‘আনলক’ পর্বে ইতিমধ্যেই খুলেছে দক্ষিণেশ্বর মন্দির আর বেলুড় মঠ। এ বার খুলতে চলেছে তারাপীঠ মন্দিরও।

করোনা সংক্রমণ রুখতে কয়েক মাস ধরেই রাজ্যের সব ধর্মীয় স্থান বন্ধ ছিল। তবে আনলক-১ পর্বে একে একে খুলে দেওয়া হয়েছে বেশ কিছু মন্দির। কিন্তু তারাপীঠ মন্দির খোলা নিয়ে কিছুতেই সিদ্ধান্তে আসতে পারছিল না মন্দির কমিটি।

এই পরিস্থিতিতে চলতি মাসের ১৪ তারিখ বৈঠকে বসেন মন্দির কমিটির সদস্যরা। সেখানে কেউ দাবি করেন, খুলে দেওয়া হোক তারাপীঠ মন্দির। কেউ আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেন, বেশির ভাগ ভক্ত তথা পর্যটক হাওড়া-কলকাতা থেকে আসেন। সুতরাং এই পরিস্থিতিতে মন্দির খুললে সংক্রমণ বাড়বে।

তবু সেই বৈঠকে ঠিক হয় ১৬ জুন মন্দির খোলা হবে। কিন্তু করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমশ বাড়তে থাকায় সিদ্ধান্ত বদল করে কমিটি। নির্ধারিত মন্দির খোলার তারিখ পিছিয়ে দেওয়া হয়।

নানা টানাপোড়েনের মধ্যেই শনিবার ফের বৈঠকে বসে মন্দির কমিটি। সেখানেই মন্দির খোলার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। তবে প্রচুর নিয়মকানুন মানতে হবে।

বৈঠক শেষে কমিটি জানায়, সমস্ত রকমের স্বাস্থ্যসুরক্ষা বিধি মেনেই মন্দির খোলা হবে। মন্দিরের তিনটি প্রবেশ পথেই স্যানিটাইজার টানেল বসানো হয়েছে। একই সঙ্গে সম্পূর্ণ মন্দির স্যানিটাইজ করা হচ্ছে।

শারীরিক দূরত্ববিধি কঠোর ভাবে পালন করতে হবে ভক্তদের। পাশাপাশি গর্ভগৃহে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না কাউকে। দর্শনার্থীদের হয়ে পুজো দিয়ে আসবেন সেবাইতরাই। ভোগের ক্ষেত্রেও বেশ কিছু কড়াকড়ি চালু করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন: সোমবার থেকে খুলছে পশ্চিমবঙ্গ বনোন্নয়ন নিগমের পাঁচটি রিসর্ট

এ দিন মন্দির কমিটির সভাপতি তারাময় মুখোপাধ্যায় জানান, “সমস্ত সেবাইতের সঙ্গে কথা বলে রথের দিনে মন্দির খোলার সিদ্ধান্ত হয়েছে”। তবে এ বার যে তারামায়ের রথ বের হবে না, তার ইঙ্গিত আগেই পাওয়া গিয়েছে।

তবে মন্দির কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি কিছুটা থিতু হয়ে এলেই ফের গর্ভগৃহে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হবে ভক্তদের।

তারপীঠ মন্দির খুললেও পর্যটকদের আনাগোনা কতটা হবে, সে বিষয়ে এখনও দুশ্চিন্তা কাটছে না হোটেল মালিকদের। তবে তাঁরাও স্বাস্থ্যসুরক্ষাবিধি মেনে স্যানিটাইজ করার কাজ শুরু করেছেন। প্রতিটি হোটেলেই শরীরের তাপমাত্রা মাপার পাশাপাশি মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, গত ২০ মার্চ থেকে বন্ধ রয়েছে তারাপীঠ মন্দিরে ভক্তদের প্রবেশ। এমনকি পয়লা বৈশাখের দিনও কোনো পুণ্যার্থীকে প্রবেশ করতে দেওয়া হয়নি। চলতি মাসের প্রথম দিকে কেন্দ্রীয় সরকার ধর্মীয় স্থান খোলার অনুমতি দিলেও সমস্ত দিক খতিয়ে দেখে তারাপীঠ মন্দির বন্ধ রাখেন কর্তৃপক্ষ।

Leave a Reply