সোমবার থেকে খুলছে পশ্চিমবঙ্গ বনোন্নয়ন নিগমের পাঁচটি রিসর্ট

  • by

ভ্রমণঅনলাইন ডেস্ক: সোমবার থেকে সুন্দরবন ব্যাঘ্র প্রকল্প যেমন পর্যটকদের জন্য খুলে যাচ্ছে, তেমনই খুলে যাচ্ছে পশ্চিমবঙ্গ বনোন্নয়ন নিগমের পাঁচটি রিসর্টও। আনলক ১-এর আবহে রাজ্যের পর্যটন শিল্পকে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে আনার চেষ্টা চালাছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। এই লক্ষ্য মাথায় রেখে গত সোমবার থেকে খুলে দেওয়া হয়েছে রাজ্য পর্যটন উন্নয়ন নিগমের পাঁচটি টুরিস্ট লজ।

সোমবার অর্থাৎ ১৫ জুন থেকে পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হচ্ছে গড়পঞ্চকোট, মুকুটমণিপুর, ঝাড়গ্রাম, লোধাশুলি আর রসিকবিলে অবস্থিত বনোন্নয়ন নিগমের রিসর্ট।

কোভিড ১৯ পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে পর্যটকদের যে প্রচুর নিয়মের মধ্যে দিতে যেতে হবে, তা বলাই বাহুল্য। মাস্ক পরে থাকতে হবে সব সময়ে, একে অপরের থেকে শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতেই হবে। এ ছাড়া বার বার যে হাত ধুতে হবে সে আর বলার অপেক্ষা রাখে না।

যে যে রিসর্ট খোলার সিদ্ধান্ত হয়েছে, তার মধ্যে একটিই রয়েছে উত্তরবঙ্গে। কোচবিহার জেলায় অবস্থিত রসিকবিল। বাকি চারটেই দক্ষিণবঙ্গে। ইতিমধ্যেই বনোন্নয়ন নিগমের ওয়েবসাইটে লজগুলির অনলাইন বুকিংও শুরু হয়ে গিয়েছে।

আরও পড়ুন: ১৫ জুন থেকে পর্যটকদের জন্য ফের খুলছে সুন্দরবন ব্যাঘ্র প্রকল্প

এর মধ্যে মুকুটমণিপুর রিসর্টটি খুলে দেওয়া খুব তাৎপর্যের। বাঁকুড়ার মুকুটমণিপুর মূলত পর্যটককেন্দ্রিক জায়গা। এখানকার স্থানীয় বাসিন্দাদের রুজিরুটিও পর্যটকদের আনাগোনার ওপরেই নির্ভর করে।

গত তিন মাস পর্যটকরা আসেননি বলে মাথায় হাত উঠে গিয়েছিল স্থানীয়দের। এক অন্ধকার ভবিষ্যতের দিকে তাকিয়ে ছিলেন সবাই। যদিও এখন আবার এই পর্যটনকেন্দ্রটি খুলছে বলে আশায় বুক বাঁধছেন স্থানীয়রা।

ইতিমধ্যে গোটা মুকুটমণিপুরকে ভালো করে স্যানিটাইজ করা হয়েছে। খাতরার দমকলকেন্দ্রের কর্মীরা এই স্যানিটাইজেশনের কাজ করেছেন। মাঝেমধ্যেই এই স্যানিটাইজেশনের কাজ চলবে এই সব জায়গায়।

উল্লেখ্য, গত সোমবার মাইথন, ডায়মন্ড হারবার, বিষ্ণুপুর, রাঙাবিতান আর লাটাগুড়ির টিলাবাড়ি পর্যটনকেন্দ্র খোলার পর বৃহস্পতিবার দিঘারও কয়েকটি হোটেল খুলেছে।

Tags:

Leave a Reply