বহু ট্রেনে এখনও চাদর-কম্বল মিলছে না, অভিযোগ যাত্রীদের, ব্যাখ্যা দিল রেল

রেল বোর্ড নির্দেশিকা জারি করা সত্ত্বেও এখনও বহু ট্রেনে চাদর-বালিশ-কম্বল মিলছে না বলে যাত্রীরা অভিযোগ করছেন। ফলে যাত্রীদের মনে সংশয়ের সৃষ্টি হয়েছে। দূরপাল্লার যাত্রায় তাঁরা নিজেরাই চাদর-বালিশ-কম্বল বহন করবেন কি না তা নিয়ে পড়েছেন ধন্দে।

শয্যা পরিষেবা ট্রেনযাত্রায় ফেরানোর খবর শুনে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছিলেন যাত্রীরা। গত দু’ বছর ধরে কোভিডবিধি চলাকালীন এ সব ব্যাগে করে বয়ে নিয়ে যেতে হচ্ছিল। লাগেজের বোঝা বেড়ে গিয়েছিল। সপ্তাহ দুয়েক আগে রেলের ঘোষণা শুনে যাত্রীরা মনে করেছিলেন আর ব্যাগে করে বয়ে নিয়ে যেতে হবে না চাদর-কম্বল।

কিন্তু যাত্রীদের অভিজ্ঞতা সর্বত্র সমান নয়। কোনো কোনো ট্রেনে এই পরিষেবা দেওয়া শুরু হলেও সব ট্রেনে তা চালু হয়নি। বহু যাত্রী অভিযোগ করছেন, তাঁরা ট্রেনযাত্রায় চাদর-বালিশ-কম্বল পাচ্ছেন না।  

ভারতীয় রেলের সিদ্ধান্ত অনুসারে গত ১০ মার্চ বৃহস্পতিবার থেকে ট্রেনে চাদর-বালিশ-কম্বল ফিরে আসার কথা। এমনকি পর্দাও। ভারতীয় রেলের বিভিন্ন জোনের জেনারেল ম্যানেজারদের এই মর্মে নির্দেশিকা পাঠিয়েছিল রেল বোর্ড।

রেল বোর্ডের নির্দেশিকা সত্ত্বেও কেন সব ট্রেনে এখনও চাদর-বালিশ-কম্বল দেওয়া শুরু হয়নি, সে সম্পর্কে ব্যাখ্যা দিয়েছে রেল মন্ত্রক। মন্ত্রক বলেছে, ট্রেনযাত্রায় চাদর-বালিশ-কম্বল ফিরিয়ে আনার ব্যাপারে যে দিন বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে, সে দিন থেকেই সেই পরিষেবা শুরু হয়েছে। তবে চাদর-বালিশ-কম্বলের যথোপযুক্ত মান সুনিশ্চিত করার জন্য এটি ধাপে ধাপে ফেরানো হচ্ছে।

এর কারণ হল, কোভিড চলাকালীন গত দু’ বছরে শয্যা সরঞ্জামের পুরোনো মজুতের অনেকটাই ব্যবহারের অযোগ্য হয়ে গিয়েছে। ফলে নতুন লিনেন সংগ্রহ করা হচ্ছে। কোভিড-পূর্ববর্তী সময়ে এই পরিষেবা যেমন ছিল, এখন তা ১০০ শতাংশ স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে আনার জন্য রেল উদয়াস্ত কাজ করছে।      

আরও পড়তে পারেন

বর্ষার আগমন দেখতে চলুন কোভলম

হাওয়া বদলের পশ্চিমে – বর্ষশেষে শিমুলতলা চলুন ট্র্যাভেলিজমের সঙ্গে

আরও পড়তে পারেন

Leave a Reply

Your email address will not be published.