‘ওয়ার্ক ফ্রম মাউন্টেনস’, পর্যটনকে চাঙ্গা করতে উত্তরাখণ্ড পর্যটনের নতুন পরিকল্পনা

  • by

ভ্রমণঅনলাইন ডেস্ক: কোভিড ১৯ অতিমারির আবহে সাধারণ চাকুরিজীবীর একটা বড়ো অংশই বাড়িতে বসে কাজ করতে বাধ্য হচ্ছেন। টানা ছ’-সাত মাস বাড়িতে  থেকে কাজ করার ফলে হতাশা, একঘেয়েমি যে অনেককেই গ্রাস করছে তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

এই একঘেয়েমি কাটাতেই এ বার অভিনব একটা ব্যবস্থা নিল উত্তরাখণ্ড সরকার। আপনি চলে যেতে পারেন কোনো পাহাড়ি গ্রামে। সেখানে বসেই আপনি করবেন অফিসের কাজ। কাজ করতে করতেই আপনি চার পাশের নৈসর্গিক শোভা দেখবেন। হাতছানি দেবে তুষারশুভ্র শৃঙ্গ।

এমন উদ্যোগ উত্তরাখণ্ডের পর্যটন দফতরের। রাজ্যের বিভিন্ন মনোরম পর্যটন কেন্দ্রে ‘ওয়ার্ক ফ্রম মাউন্টেনস’-এর ব্যবস্থা করা হয়েছে। কাজ করেও ছুটির আমেজ উপভোগ করা। এই ব্যবস্থার পোশাকি নাম দেওয়া হয়েছে ‘ওয়ার্ককেশন’।

এই বিষয়ে উত্তরাখণ্ড পর্যটনের সচিব দিলীপ জাওয়ালকর বলেছেন, ‘‘ছুটি কাটানোর সব থেকে আধুনিক ধারণা হল এই ওয়ার্কেশন। কোভিড অতিমারিতে বাড়ি থেকে কাজ করার যুগে এই সুযোগ আনছে উত্তরাখণ্ড সরকার। ছুটিতে এসেও যাতে অফিসের কাজ করা যায়, সে জন্যই এই উদ্যোগ।”

জিম করবেট উদ্যান, ল্যান্সডাউন, মুসৌরি, কৌশানি, দেহরাদুন, নৈনিতাল, আলমোড়ার মতো জায়গার প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগ করার মধ্যেই কাজ করতে পারবেন পর্যটকরা, এমনই জানাচ্ছে পর্যটন দফতর। এই সব জায়গার বিভিন্ন হোমস্টে, হোটেল ও রিসর্টে কম খরচেই ওয়ার্ককেশনের সুবিধা পাওয়া যাবে বলে জানিয়েছেন জাওয়ালকর।

সর্বক্ষণ বিদ্যুৎ পরিষেবা ও ইন্টারনেটের ব্যবস্থা থাকবে সেখানে। কাজ করার ফাঁকে যাতে ঘুরতে যাওয়া, বাইকিং, ট্রেকিং করা যায়, সেই সব ব্যবস্থাও থাকবে পর্যটন বিভাগের তরফে। ইতিমধ্যে বিভিন্ন পেশাদার এই ওয়ার্ককেশনের প্যাকেজ নিয়ে খোঁজ নেওয়া শুরু করেছেন বলে জানাচ্ছেন সেখানকার হোমস্টে ও হোটেল মালিকরা। এই ব্যবস্থার মধ্যে দিয়ে রাজ্য পর্যটনের সুদিন আবার ফিরবে বলে মনে করা হচ্ছে।

ভ্রমণঅনলাইনে আরও পড়তে পারেন

চেনা বৃত্তের বাইরে: ফুটফুটে ফুটিয়ারি

Leave a Reply