রাজ্য পর্যটন দফতরের উদ্যোগে তিনদিনব্যাপী পর্যটন মেলা শুরু বিষ্ণুপুরে

ইন্দ্রাণী সেন

বাঁকুড়া: রাজ্য পর্যটন দফতরের উদ্যোগে বাঁকুড়ার বিষ্ণুপুরে শুরু হল তিন দিনের পর্যটন উৎসব। বিষ্ণুপুর হাইস্কুল মাঠে প্রদীপ প্রজ্বলন করে অনুষ্ঠানের সূচনা করেন রাজ্যের পর্যটনমন্ত্রী গৌতম দেব। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাঁকুড়ার জেলাশাসক ড.উমাশঙ্কর এস, বিষ্ণুপুরের মহকুমাশাসক মানস মণ্ডল, মন্ত্রী শ্যামল সাঁতরা, সাংসদ সৌমিত্র খান, বিধায়ক জ্যোৎস্না মান্ডি প্রমুখ।

পুজোর আগে তিন দিনের এই পর্যটন উৎসবকে কেন্দ্র করে স্থানীয় মানুষের মধ্য উৎসাহ ছিল চোখে পড়ার মতো। মেলাতে হস্তশিল্পকে বিশেষ প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে। বিষ্ণুপুরের বিখ্যাত বালুচরী, স্বর্ণচুরী থেকে শুরু করে টেরাকোটা ও লন্ঠন-এর বিশেষ স্টল রয়েছে। বিষ্ণুপুর মহকুমাশাসক মানস মণ্ডল বলেন, “এই মেলা থেকে হোটেলের স্পট বুকিং করা যাবে। সেই সঙ্গে পর্যটন কেন্দ্রের বিষয়ে সমস্ত রকম তথ্য পাবেন ভ্রমণপ্রিয় মানুষ।” তিনি আরও বলেন, “এই মেলা থেকে ঐতিহাসিক শহর বিষ্ণুপুর বিষয়ে অনেক কিছুই জানতে পারবেন সাধারণ মানুষ”।

মন্ত্রী গৌতম দেব বলেন, “বিষ্ণুপুর আমাদের হৃদয়ের খুব কাছের, এই নিয়ে দু’বার বিষ্ণুপুর এলাম। এই শহরের খ্যাতি বিশ্বজোড়া। শাস্ত্রীয় সংগীত, টেরাকোটা থেকে শুরু করে বালুচরী শাড়ি বিশেষ ভাবে নজর কাড়ে। মন্দিরনগরীকে সামনে রেখে পুরো জেলা জুড়েই অবাধ পর্যটনের সুযোগ আছে।”

সাধারণ মানুষ প্রশাসনের এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন। পুজোর আগেই জেলাতে এই পর্যটন উৎসব বিশেষ সাড়া ফেলেছে। মেলাতে উপস্থিত রুপালী ঘোষ, সুস্মিতা রায়, প্রিয়াঙ্কা দে-রা বলেন ঐতিহাসিক নিদর্শন ও ঐতিহ্য একসাথে দেখার প্রথম সুযোগ করে দিয়েছে এই পর্যটন উৎসব। এক ছাদের তলায় কেনাকাটা থেকে শুরু করে বিনোদন খুব ভাল লাগছে।

আরও পড়তে পারেন

Leave a Reply

Your email address will not be published.