জলন্ধরের পর শ্রীনগর, দেখা গেল বরফে ঢাকা পির পানজাল

Pir Panjal from Srinagar

ভ্রমণ অনলাইন ডেস্ক: এই লকডাউনের সময়ে প্রকৃতি তার মহিমা প্রদর্শন করে চলেছে। মানুষমুক্ত জায়গা যেমন এখন বন্যপ্রাণীর অবাধ বিচরণক্ষেত্র হয়ে উঠেছে, তেমনই দূষণমুক্ত আবহাওয়া প্রকৃতির লীলা সন্দর্শনের সুযোগ করে দিচ্ছে।

এক দিকে কলকাতার গঙ্গায় গাঙ্গেয় ডলফিন, মুম্বইয়ের খাঁড়িতে ফ্লেমিঙ্গো, হরিদ্বারের রাস্তায় হাতি ইত্যাদি দেখা যাচ্ছে, তেমনই অন্য দিকে জলন্ধর থেকে দেখা যাচ্ছে তুষারাবৃত ধৌলাধার। প্রবীণরা বলছেন, তাঁদের ছোটোবেলায় দেখা যেত ধৌলাধার। তার পর দূষণের পাল্লায় পড়ে সে হারিয়ে গিয়েছিল।

এ বার শ্রীনগরে দেখা গেল তুষারাবৃত পির পানজাল গিরিশ্রেণি। ওয়াসিম আন্দ্রাবি নামে এক সাংবাদিক ২৩ এপ্রিল বরফে ঢাকা পির পানজালের ছবি টুইট করেছেন। তিনি লিখেছেন, “২৩ এপ্রিল শ্রীনগর শহর থেকে পির পানজাল পর্বতশ্রেণি দেখা গেল।”    

নিম্ন হিমালয়ের সব চেয়ে দীর্ঘতম গিরিশ্রেণি হল পির পানজাল। হিমাচল প্রদেশ, জম্মু-কাশ্মীর ও পাকিস্তান অধিকৃত কাশ্মীরে এর বিস্তৃতি। এর গড় উচ্চতা ৪৬০০ ফুট থেকে ১৩৫০০ ফুট।

এই পির পানজাল গিরিশ্রেণিই কাশ্মীর উপত্যকাকে জম্মু থেকে বিচ্ছিন্ন করেছে। এই গিরিশ্রেণির উপর দিয়েই গিয়েছে বানিহাল পাস। এই পাস উত্তরের কাশ্মীর উপত্যকার সঙ্গে দক্ষিণের সমতলভূমির সংযোগ সাধন করত। ১৯৫৬ সালে বানিহালের নীচে দিয়ে জওহর টানেল তৈরি হয়। জওহর টানেল তৈরি হওয়ার আগে পর্যন্ত বানিহাল পাস দিয়েই সড়ক পরিবহণ চলত। টানেল তৈরি হওয়ার পর থেকে বানিহাল পাস পরিত্যক্ত হয়েছে।

আরও পড়ুন: পর্যটনের হাল ফেরাতে পরিকল্পনা শুরু করে দিল কেরল

পির পানজাল গিরিশ্রেণির পূর্বাংশে রয়েছে দু’টি শৃঙ্গ – দেও টিব্বা (১৯৬৮৮ ফুট) এবং ইন্দ্রসেন (২০৪১০ ফুট)। সাংবাদিক আন্দ্রাবি তুষারাবৃত পির পানজালের টুইট করতেই তা মুহূর্তের মধ্যে ভাইরাল হয়ে যায়। খুশির খবর ছড়িয়ে পড়ে। নেটিজেনরা সক্রিয় হয়ে পড়েন সোশ্যাল মিডিয়ায়।

Leave a Reply