ছবির গ্যালারি

বরফে ঢাকা বদরীনাথ, দেখুন কিছু ছবি

ভ্রমণঅনলাইন ডেস্ক: আবহাওয়ার পূর্বাভাস একটা ছিলই, কিন্তু সেটা যে এত ভয়ংকর রূপ নেবে সেটা আন্দাজ করতে পারেননি অশোক কুমার ঘোষ, অঙ্কিতা দত্তরা। শনিবার সকালে যোশীমঠ থেকে ঝিরিঝিরি বৃষ্টি নিয়েই তাঁরা রওনা হলেন বদরীনাথের পথে। বিষ্ণুপ্রয়াগ পেরিয়ে যাওয়ার পরেই বরফের রূপ নিল বৃষ্টি। যত বদরীর দিকে এগোনো, তত বরফের প্রকোপ বাড়া। শেষে বদরী যখন পৌঁছোনো গেল, তখন তরুণী অঙ্কিতার হাঁটুসমান বরফ।

প্রথম দিকের মজা আসতে আসতে বদলে গেল চিন্তায়। কারণ রাত বাড়লেও তুষারপাত থামার কোনো চিহ্নই ছিল না। তবে রবিবার থেকে উন্নতি হতে শুরু হল আবহাওয়ার। রোদ্দুর যখন উঠল, তখন দেখা গেল গোটা মন্দির-শহর বদরী ঢেকে রয়েছে পুরু বরফের আস্তরণে। শনিবারের স্তব্ধ বদরী ধীরে ধীরে প্রাণ পেল। জনজীবন স্বাভাবিক করার চেষ্টা শুরু হল। শুরু হল বরফ কাটা। সোমবার সকালে পরিষ্কার আকাশে নীলকন্ঠে অসাধারণ সূর্যোদয় দেখে বদরীকে বিদায় জানালেন তাঁরা।

গত দু’দিনে নিজেদের মোবাইল ক্যামেরায় অসাধারণ কিছু ছবি তুলেছেন অশোকবাবু এবং অঙ্কিতা। তাঁদের সেই ছবি আমরা এখানে দিচ্ছি পাঠকদের তুষারস্নাত বদরীর ছবি দেখাতে।

ভারী তুষারপাতের মধ্যেই গাড়ি পৌঁছল বদরীনাথ। সঙ্গে সঙ্গে ঢেকে গেল বরফে।
ভারত সেবাশ্রম সঙ্ঘের বারান্দা তখন বরফে ঢাকা
শনিবার সকাল। তুষারপাত বন্ধ হয়েছে। আকাশ পরিষ্কার হওয়ার চেষ্টায়।
ভারত সেবাশ্রম থেকে মন্দির-শহর বদরীনাথ। মাঝখান দিয়ে বয়ে চলেছে অলকানন্দা
স্বাভাবিক হচ্ছে জনজীবন। রাস্তা পরিষ্কার করা হচ্ছে।
সোমবার সকাল। দুর্যোগ উধাও। নীলকণ্ঠে অসাধারণ সূর্যোদয়।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

You may also like