ভ্রমণের খবর

আগস্টেই তুষারপাত লাহুল-স্পিতি, রোটাং পাসে

snowfall in lahual-spiti

ভ্রমণ অনলাইনডেস্ক: আবহাওয়ার চূড়ান্ত খামখেয়ালিপনা বোধহয় একেই বলে। গত কয়েক দিন ধরেই হিমাচল প্রদেশে প্রচুর বৃষ্টিপাত হচ্ছে। এ বার হল তুষারপাত। আর তা হল জনপ্রিয় পর্যটনকেন্দ্র রোটাং পাসে। পর পর দু’দিন রোটাং-এ বরফ পড়ল। রবিবারের পর সোমবার। বরফে ঢেকে গিয়েছে গোটা এলাকা। লাহুল-স্পিতি এলাকা এখন বরফাবৃত।   

এই সময়ে হিমাচলে যে একদম বরফ পড়ে না তা নয়। বরং লাহুল-স্পিতি অঞ্চলে অবস্থিত বিভিন্ন শৃঙ্গের ওপরে তুষারপাত হয়। তবে তার উচ্চতা সমুদ্রতল থেকে ১৭ হাজার ফুট বা তারও বেশি। সেখানে পর্বতারোহী এবং সেনাকর্মীরা ছাড়া কেউ যানও না। কিন্তু যে ভাবে মাত্র ১৩ হাজার ফুটের রোটাংয়ে বরফ পড়েছে তা যথেষ্ট চমকপ্রদ।

আরও পড়ুন নবদ্বীপ রাজ্যের দ্বিতীয় হেরিটেজ শহর হল

গত বছর সেপ্টেম্বরের শেষে মরশুমের প্রথম বরফ দেখেছিল রোটাং। এ বার তা এক মাস এগিয়ে এসেছে। শিমলা আঞ্চলিক আবহাওয়া কেন্দ্রের ডিরেক্টর ড. মনমোহন সিং সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, শেষ বার আগস্টে কবে বরফ পড়েছে তার ব্যাপারে তাদের কাছে কোনো রেকর্ডই নেই।

রোটাংয়ের পাশাপাশি লাহুল-স্পিতি জেলার বেশ কিছু জায়গাতেও বরফ পড়েছে। ডঃ মনমোহন সিং জানিয়েছেন, স্পিতিতে ১১ বছর পর এই সময়ে বরফ পড়ল। ২০০৮ সালে আগস্ট মাসে বরফ পড়েছিল। আর লাহুল এই সময়ে শেষ কবে বরফ পড়েছে তা জানা নেই শিমলা কেন্দ্রের অধিকর্তার। সে দিকে লাহুলে এই সময়ে বরফ পড়া অস্বাভাবিক ঘটনা বলে মনে করেন ড. সিং।  

এই অসময়ের তুষারপাতের জন্য লাহুল-স্পিতির বিভিন্ন জায়গায় আটকে পড়েন ৩৫০ পর্যটক। এঁদের মধ্যে ১৫০ জন আটকে পড়েছেন স্পিতি আর চন্দ্রতালে, এবং ২০০ জন আটকে পড়েছেন লাহুলে। বর্ডার রোডস অর্গানাইজেশন (বিআরও) ১৫০ জন পর্যটক ও শ্রমিককে উদ্ধার করেছেন।

উত্তরপ্রদেশের ৩০ বছর বয়সি এক পর্যটকের মৃত্যুও হয়েছে লাহুল-স্পিতি এলাকার ছোটাদাড়ায়। তবে তই ব্যক্তির মৃত্যুর পেছনে তুষারপাত কোনো কারণ কি না, সেটা খতিয়ে দেখা হবে বলে জানিয়েছে জেলা প্রশাসন।

Booking.com

Leave a Comment

Your email address will not be published.

You may also like