এই সব রাজ্যে বেড়াতে গেলে কোনো কোভিড নেগেটিভ রিপোর্ট লাগবে না

ভ্রমণঅনলাইন ডেস্ক: সারা দেশেই কোভিডের দ্বিতীয় ঢেউয়ের প্রভাব ক্রমশ কমে আসছে। আর কোভিডের নিম্নমুখী প্রবণতার সঙ্গে তাল রেখে বিভিন্ন রাজ্য ভ্রমণ সংক্রান্ত নানা বিধিনিষেধ একটু একটু করে শিথিল করছে।

বেশ কিছু রাজ্যে ঢোকার জন্য এখন আর কোভিড নেগেটিভ রিপোর্ট বা আরটি–পিসিআর রিপোর্ট লাগছে না। অন্য দিকে কিছু রাজ্যে প্রবেশের জন্য টিকাকরণের সার্টিফিকেট লাগছে। তবে এই সব নিয়ম কোনোটাই স্থায়ী নয়, প্রতিনিয়তই পালটাচ্ছে। তাই ঘুরতে বেরোনোর আগে ভালো করে দেখে নিন, কোন রাজ্য কী নথিপত্র চাইছে।

যে সব রাজ্যে আরটি–পিসিআর রিপোর্ট লাগছে না

দিল্লি, হিমাচল প্রদেশ, তেলঙ্গানা, হরিয়ানা, তামিলনাড়ু, কর্নাটক ও অন্ধ্রপ্রদেশে ঢোকার জন্য আরটি–পিসিআর রিপোর্ট লাগছে না। এর মধ্যে কোয়েম্বত্তুর বিমানবন্দর দিয়ে কেউ যদি তামিলনাড়ুতে ঢোকেন তা হলে আরটি–পিসিআর পরীক্ষার নেগেটিভ রিপোর্ট সঙ্গে রেখে দেওয়া দরকার এবং সেই রিপোর্ট যেন ৭২ ঘণ্টার বেশি পুরোনো না হয়। কারণ কোয়েম্বত্তুর বিমানবন্দরে কোনো কোনো বিমান সংস্থা ওই রিপোর্ট দেখতে চাইতে পারে।

আরটি–পিসিআর রিপোর্ট নয়, তবে টিকার একটা ডোজের সার্টিফিকেট

পঞ্জাব ও চণ্ডীগড়ে ঢোকার জন্যও কোনো আরটি–পিসিআর পরীক্ষার নেগেটিভ রিপোর্ট লাগছে না, তবে কোভিড টিকাকরণের সার্টিফিকেট সঙ্গে রাখতে হচ্ছে। টিকাকরণ যদি একটা ডোজ হয়, তা হলেও চলবে। তবে টিকাকরণের সার্টিফিকেট যদি না থাকে তখন আরটি–পিসিআর রিপোর্ট সঙ্গে রাখতে হবে যা ৭২ ঘণ্টার বেশি পুরোনো হলে চলবে না।

সমুদ্রসৈকত, পুরী, ওড়িশা।

নিম্ন রাজ্যগুলিতে কোনো আরটি–পিসিআর রিপোর্ট লাগছে না, যদি টিকার দু’টি ডোজের সার্টিফিকেট থাকে –

ওড়িশা

ওড়িশায় ঢুকতে গেলে দ্বিতীয় ডোজের সার্টিফিকেট সঙ্গে রাখতে হবে। যদি ওই সার্টিফিকেট না থাকে, তা হলে আরটি–পিসিআর পরীক্ষার নেগেটিভ রিপোর্ট অথবা অ্যান্টিজেন রিপোর্ট থাকতে হবে। এবং সেই ৪৮ ঘণ্টার বেশি পুরোনো হলে চলবে না।

রাজস্থান

সঙ্গে যদি কোভিড টিকাকরণের সার্টিফিকেট থাকে এবং টিকার দ্বিতীয় ডোজ নেওয়ার পরে যদি অন্তত ২৮ দিন কেটে যায় তা হলে আপনি স্বচ্ছন্দে রাজস্থান ঘুরে আসতে পারেন।

ছত্তীসগঢ়

ছত্তীসগঢ়ে ঢোকার জন্য আপনার সঙ্গে রাখতে হবে টিকাকরণের দ্বিতীয় ডোজের সার্টিফিকেট অথবা আরটি–পিসিআর পরীক্ষার নেগেটিভ রিপোর্ট যা ৯৬ ঘণ্টার বেশি পুরোনো হলে চলবে না।

মেঘালয়

দিল্লি, মহারাষ্ট্র, বিহার, উত্তরপ্রদেশ, কর্নাটক, কেরল এবং পশ্চিমবঙ্গ ছাড়া অন্য রাজ্যের কেউ মেঘালয়ে ঢুকতে চাইলে কোভিড টেস্ট রিপোর্ট না দেখালেও চলবে, তবে তাঁদের সঙ্গে টিকাকরণের দ্বিতীয় ডোজের সার্টিফিকেট থাকতে হবে।

আরও পড়ুন: হিমাচলে ঢোকার জন্য ১ জুলাই থেকে আর ই-পাস লাগবে না

আরও পড়তে পারেন

Leave a Reply

Your email address will not be published.