ইউনেস্কো বিশ্ব ঐতিহ্যের প্রাথমিক তালিকায় মধ্যপ্রদেশের ভেড়াঘাট ও সতপুরা

ভ্রমণঅনলাইন ডেস্ক: পর্যটকদের স্বর্গরাজ্য মধ্যপ্রদেশ। প্রকৃতি এখানে তার সৌন্দর্য উজাড় করে দিয়েছে। এখানকার বিভিন্ন জঙ্গল বন্যজন্তুতে পরিপূর্ণ। রয়েছে অনেক ঐতিহাসিক স্থল। ভক্তমানুষেরও দর্শনের মতো অসংখ্য জায়গা রয়েছে এই রাজ্যে। এ হেন মধ্যপ্রদেশের জবলপুরে ভেড়াঘাট-লামেটাঘাট এবং সতপুরা টাইগার রিজার্ভ ২০২১-এর ইউনেস্কো বিশ্ব ঐতিহ্যের প্রাথমিক তালিকায় স্থান পেয়েছে। এই খবর দিয়েছেন রাজ্যের মুখ্য পর্যটন সচিব শেও শেখর শুক্ল।

মুখ্য পর্যটন সচিব আরও জানান, ইউনেস্কো ওয়ার্ল্ড হেরিটেজের প্রাথমিক তালিকায় ভেড়াঘাট-লামেটাঘাট এবং সতপুরা টাইগার রিজার্ভকে অন্তর্ভুক্ত করার জন্য মধ্যপ্রদেশ ট্যুরিজম বোর্ড গত ৯ এপ্রিল ভারত সরকারের এএসআইয়ের ডিরেক্টর জেনারেলকে অনুরোধ করেন।

মধ্যপ্রদেশের কোন কোন জায়গা বিশ্ব ঐতিহ্যের প্রাথমিক তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা যায়, তা চিহ্নিত করার জন্য রাজ্যের ট্যুরিজম বোর্ড দেহরাদুনে অবস্থিত ডব্লিউআইআই (ওয়াইল্ডলাইফ ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়া) ক্যাটেগরি ২ সেন্টারকে দায়িত্ব দিয়েছিল। কয়েক বছর ধরে সরেজমিনে কাজ করে, বিশ্লেষণ করে তারা ওই দু’টি সাইটকে চিহ্নিত করে। এর জন্য ভারতের বিভিন্ন শহরে বেশ কিছু ওয়ার্কশপ করা হয়।

সতপুরা টাইগার রিজার্ভ।

ভেড়াঘাট

নর্মদা নদীর দুই ধারে নয়নলোভন মার্বেল রক ও দৃষ্টিনন্দন ধুঁয়াধার জলপ্রপাতের জন্য বিখ্যাত ভেড়াঘাট। জবলপুর শহর থেকে ২৬ কিমি দূরে।

সতপুরা টাইগার রিজার্ভ

৫২৪ বর্গকিমি এলাকা জুড়ে এই টাইগার রিজার্ভ হোসঙ্গাবাদ জেলায় অবস্থিত। ১৯৮১ সালে এই বনাঞ্চল টাইগার রিজার্ভ হিসাবে ঘোষিত হয়। চিতাবাঘ, সম্বর, নীলগাই, চার শিংওয়ালা হরিণ, বন্য মহিষ, শিয়াল, উড়ন্ত কাঠবিড়ালির জন্য বিখ্যাত এই বনাঞ্চল।

ছবি: সৌজন্যে মধ্যপ্রদেশ ট্যুরিজম

আরও পড়ুন: পর পর দু’ বছর, উত্তরপ্রদেশের শহর থেকে দেখা গেল হিমালয়ের তুষারশৃঙ্গ

আরও পড়তে পারেন

Leave a Reply

Your email address will not be published.