উৎসব ভ্রমণ-সংস্কৃতি

সারা দিনের ‘ভ্রমণ আড্ডা’র একুশে পা

bhramanadda

নিজস্ব প্রতিনিধি: ভ্রামণিক, ভ্রমণলেখক, ভ্রমণাগ্রহীদের সমাবেশে জমজমাট হয়ে উঠল ‘ভ্রমণ আড্ডা’র আসর। মেঘলা আবহাওয়ায় হালকা শীতের ছোঁয়া নিয়ে সারা দিন ধরে উপভোগ করলেন আসরে হাজির সবাই। চলল ভ্রমণের ছবি দেখা, ভ্রমণের অভিজ্ঞতার কথা শোনা, ভ্রমণের বই নেড়েচেড়ে দেখা এবং কেনা, আর দুপুরের অত্যন্ত সুস্বাদু ভোজ। আর সেই সঙ্গে অবশ্যই তিনটি সম্মান প্রদান।

a signboard of bhramanadda
ভ্রমণ নিয়ে আড্ডা। নিজস্ব চিত্র।

আসর বসেছিল রবিবার, সকাল সাড়ে ৯টা থেকে ভদ্রশ্বরের ভোলানাথ চক্রবর্তী মেমোরিয়াল স্কুল প্রাঙ্গণে। উদ্যোক্তা ‘ভ্রমণ আড্ডা’। একুশ বছরে পা দিল এই আসর। আসর চলল সন্ধে পর্যন্ত।

bhraman samman awarded to raj basu
রাজ বসুকে ভ্রমণ সম্মান দিচ্ছেন রতনলাল বিশ্বাস। নিজস্ব চিত্র।

তিনটি সম্মান প্রদান করা হল তিনজনকে – ভ্রমণ সম্মান দেওয়া হল ‘অ্যাসোসিয়েশন ফর কনজারভেশন অ্যান্ড ট্যুরিজম’-এর অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা রাজ বসুকে, মুসাফির সম্মান দেওয়া হল বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোলবিদ্যা বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত প্রধান গুরুপ্রসাদ চট্টোপাধ্যায়কে এবং কলম সম্মান দেওয়া হল ভ্রামণিক সুলেখক ফাল্গুনী মণ্ডলকে। সঙ্গে ছিল ভ্রমণ নিয়ে ছবির ‘অঘোষিত’ প্রদর্শনী এবং ভ্রমণ সংক্রান্ত বইয়ের স্টল।

travel books in bhraman adda
আসরে ভ্রমণের বই। নিজস্ব চিত্র।

কথায় বলে ‘টুরিস্ট’ শব্দটির অর্থ অভিধানে খুঁজতে গেলে দেখা যাবে সেখানে লেখা আছে ‘বাঙালি’। সুযোগ পেলেই বাঙালি বেরিয়ে পড়ে। নিজের মতো করে ঘুরে বেড়ায় – কেউ করে নানা ধরনের অভিযান, কেউ করে নিছকই ভ্রমণ। আবার অভিযানেরও রকমফের আছে। কেউ পর্বতশীর্ষের মাথায় ওঠেন, কেউ বা পাহাড়ের দুর্গম পথে ট্রেক করেন। কেউ সমুদ্রের তীর ধরে হাঁটেন, কেঊ বা প্রবল শীতে জমে যাওয়া নদী বা লেকের বুকের ওপর দিয়ে হাঁটেন, কেউ আবার মরুভূমির বুক চিরে হেঁটে এক প্রান্ত থেকে আরেক প্রান্তে যান। কেউ সাইকেলে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ ঘোরেন, কেঊ বা গাড়ি নিয়ে বেড়িয়ে পড়েন অতি দুর্গম রাস্তায়। এ তো গেল একটা উদ্দেশ্যমূলক ভ্রমণ। কিন্তু গড়পড়তা বাঙালি তো ছুটি পেলেই ঘর থেকে দু’ পা ফেলেন বাইরে – সে যেখানেই হোক।

tasty food
ভোজন ছাড়া কি আড্ডা হয়? নিজস্ব চিত্র

আর আড্ডাপ্রিয় বাঙালি যে শুধু যে বেড়াতে ভালোবাসেন তা-ই নয়, সে-ই বেড়ানো নিয়ে সারা দিনের আড্ডাতেও মাতেন, বিখ্যাত ‘পথিক’ রতনলাল বিশ্বাসের বৈকাল হৃদে ট্রেকিং-এর ছবি গোগ্রাসে গেলেন, লিপিকা বিশ্বাসের একাকী সাইকেল-ভ্রমণের তারিফ করেন। ‘ভ্রমণ আড্ডা’ দেখিয়ে দিল আড্ডাপ্রিয় বাঙালিকে ভ্রমণ নিয়ে আড্ডার আসরে টেনে আনা খুব কঠিন নয়, যদি আবার সেই আসরে থাকে ভোজনপ্রিয় বাঙালির রসনা তৃপ্ত করার মতো খাবারের আয়োজন – সুস্বাদু ভাত, বেশ জমজমাট ডাল, মুচমুচে বেগুনি, এঁচোড়ের ডালনা, ছানার ডালনা (মনে রাখুন, পনির নয়), পাঁপড় ভাজা আর টমেটো-আমসত্ত্বের চাটনি।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

You may also like