বিমানবন্দরে বিদেশাগতদের পরীক্ষার ফল নেগেটিভ হলেও যেতে হবে কোয়ারান্টাইনে, অষ্টম দিনে করাতে হবে আরটি-পিসিআর

নয়াদিল্লি: বিদেশ থেকে আসা যাত্রীদের জন্য সংশোধিত কোভিড নির্দেশিকা জারি করেছে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রক। এই নির্দেশিকা ১১ জানুয়ারি থেকে চালু হবে বলে জানা গিয়েছে।

সংশোধিত বিধি অনুযায়ী যে সব যাত্রী ‘ঝুঁকিপুর্ণ’ দেশ থেকে আসবেন বা এ ধরনের দেশ হয়ে আসবেন তাঁরা কোভিড পজিটিভ হলে তাঁদের কড়াকড়ি ভাবে নিভৃতাবাসে তথা আইসোলেশনে থাকতে হবে।

কোভিডের ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টের অতি দ্রুত ছড়িয়ে পড়ার পরিপ্রেক্ষিতে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। যে সব যাত্রী ‘ঝুঁকিপুর্ণ’ দেশ থেকে আসবেন বা এ ধরনের দেশ হয়ে আসবেন তাঁদের বিমান কোম্পানিগুলি জানিয়ে দেবেন, ভারতের বিমানবন্দরে পৌঁছোনোর সঙ্গে সঙ্গে তাঁদের কোভিড পরীক্ষা হবে এবং পরীক্ষার ফল যতক্ষণ না আসে ততক্ষণ তাঁরা বিমানবন্দর ছেড়ে যেতে পারবেন না।

এ ছাড়াও সমস্ত আন্তর্জাতিক যাত্রীকে ‘এয়ার সুবিধা’ পোর্টালে নাম নথিভুক্ত করতে হবে এবং তাঁদের ভ্রমণের সব কিছু বিশদে জানাতে হবে; কোভিড নেগেটিভ রিপোর্ট আপলোড করতে হবে যে রিপোর্ট ৭২ ঘণ্টার বেশি পুরোনো হলে চলবে না; এর প্রামাণ্যতা ঘোষণা করতে হবে এবং তাঁদের এই মর্মে ঘোষণা করতে হবে যে সংশোধিত নির্দেশিকা অনুযায়ী কোয়ারান্টাইনে থাকার ব্যাপারে কর্তৃপক্ষ যে সিদ্ধান্ত নেবেন তা তাঁরা মেনে চলবেন।

ভারতের বিমানবন্দরে পৌঁছোনোর সঙ্গে সঙ্গে তাঁদের যে কোভিড পরীক্ষা হবে সেটিও আগে থেকে বুক করে রাখতে হবে আন্তর্জাতিক যাত্রীদের।

‘ঝুঁকিপুর্ণ’ দেশ থেকে বা ওই সব দেশ হয়ে যাঁরা ভারতে পৌঁছোবেন তাঁদের জন্য নির্দেশিকা:

বিমানবন্দরে পৌঁছোনোর সঙ্গে সঙ্গে কোভিড ১৯ পরীক্ষার জন্য নমুনা জমা করতে হবে; পরীক্ষার খরচ নিজেকে বহন করতে হবে।

পরীক্ষার ফল আসা পর্যন্ত তাঁদের বিমানবন্দরে অপেক্ষা করতে হবে।

পরীক্ষার ফল নেগেটিভ হলে তাঁদের বাড়িতেই ৭ দিন কোয়ারান্টাইনে থাকতে হবে এবং ভারতে আসার অষ্টম দিনের মাথায় আবার আরটি-পিসিআর টেস্ট করাতে হবে।

আরটি-পিসিআর টেস্টের ফল অষ্টম দিনে ‘এয়ার সুবিধা’ পোর্টালে আপলোড করতে হবে; ব্যাপারটি সংশ্লিষ্ট রাজ্য বা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল নজরদারি করবে।

তাঁদের পরীক্ষার ফল আবার যদি নেগেটিভ আসে, তা হলে পরবর্তী ৭ দিন তাঁদের নিজেদেরই স্বাস্থ্যের দিকে নজর রাখতে হবে।

কিন্তু ফল যদি পজিটিভ আসে, তা হলে তাঁদের নমুনা জিনোমিক টেস্টের জন্য ইনসাকগ (INSACOG) ল্যাবেরটরি নেটওয়ার্কে পাঠানো হবে।

যাঁদের পরীক্ষার ফল নেগেটিভ আসবে, তাঁদের নিভৃতাবাসে তথা আইসোলেশনে রাখার ব্যবস্থা করা হবে এবং কন্ট্যাক্ট ট্রেসিং-সহ বিধি অনুযায়ী বিভিন্ন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

যাঁরা এ ধরনের পজিটিভ ব্যাক্তির সংস্পর্শে আসবেন তাঁদের বাড়িতে কোয়ারান্টাইনে থাকতে বলা হবে এবং গোটা ব্যাপারটা স্থানীয় রাজ্য সরকার কড়াকড়ি ভাবে নজরদারি করবে।

যে সব দেশ ‘ঝুঁকিপুর্ণ’ নয়, সে সব দেশ থেকে বা হয়ে যাঁরা ভারতে পৌঁছোবেন তাঁদের জন্য নির্দেশিকা:

বিমানবন্দরে পৌঁছোনোর সঙ্গে সঙ্গে মোট উড়ানযাত্রীর ২ শতাংশের কোভিড পরীক্ষা হবে। ওই ২ শতাংশ ইচ্ছেমতো বেছে নেওয়া হবে।

ওই ২ শতাংশের মধ্যে যাঁদের ফল নেগেটিভ আসবে এবং বাদবাকি সব উড়ানযাত্রীকে নিজেদের বাড়িতেই ৭ দিন কোয়ারান্টাইনে থাকতে হবে এবং ভারতে আসার অষ্টম দিনের মাথায় আবার আরটি-পিসিআর টেস্ট করাতে হবে।

বাদবাকি নির্দেশিকা ‘ঝুঁকিপুর্ণ’ দেশ থেকে আসা যাত্রীদেরই মতো।

আরও পড়তে পারেন

কর্নাটকে সপ্তাহান্তিক কার্ফু থেকে নানা ছাড় পর্যটকদের, সাফারিতেও অনুমতি

উত্তরাখণ্ডের চারধাম যাওয়ার হারিয়ে যাওয়া হাঁটাপথ খুঁজে পেল বিশেষজ্ঞদল

আরও পড়তে পারেন

Leave a Reply

Your email address will not be published.