অবরুদ্ধ উত্তর সিকিম থেকে আকাশপথে পর্যটকদের ফিরিয়ে আনা শুরু করল সেনা

ভ্রমণ অনলাইনডেস্ক: আবহাওয়া অনুকূল হতেই যুদ্ধকালীন তৎপরতায় আকাশপথে উত্তর সিকিম থেকে পর্যটকদের উদ্ধার করছে সেনা। সোমবার সকাল থেকে মোট ১৪৯ জনকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে বলে সেনা সূত্রে খবর। এখনও অনেকে আটকে রয়েছেন। সংখ্যাটা ঠিক কত, তা নির্দিষ্ট করে জানা যায়নি। তবে আগামী কয়েক দিন আবহাওয়া ভালো থাকলে সবাইকে উদ্ধার করে নিয়ে আসা সম্ভব হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

সোমবার পাকিয়ং বিমানবন্দর থেকে সেনার একের পর এক হেলিকপ্টার উত্তর সিকিমের দিকে উড়ে গিয়েছে। চলেছে উদ্ধারকাজ। সেনার তরফে দেওয়া একটি বিবৃতিতে বলা হয়েছে, উত্তর সিকিমের বিপর্যস্ত এলাকার বাসিন্দাদের বাদ দিয়ে শুধুমাত্র পর্যটকের সংখ্যা প্রায় ২,০০০। যাঁদের মধ্যে ৬৩ জন বিদেশি পর্যটকও রয়েছেন। তবে তাঁদের প্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী থেকে ওষুধপত্র সঠিক সময়ে দিচ্ছে সেনা।

এ-ও জানানো হয়েছে, সোমবার পর্যন্ত মোট ১৪৯ জন পর্যটককে উদ্ধার করা হয়েছে। এর মধ্যে লাচেন থেকে ২৯ জন এবং লাচুং থেকে ১২০ জনকে উদ্ধার করে গ্যাংটকে নিয়ে আসা হয়েছে। তাঁদের মঙ্গলবার সিকিম সরকারের বাসে করে লাভা, গোরুবাথান হয়ে শিলিগুড়ি নিয়ে যাওয়া হবে। উত্তর সিকিমের গ্রামের মধ্যে সংযোগকারী যে সেতু এবং রাস্তাগুলো ভেসে গিয়েছিল, সেগুলোর মধ্যে সংযোগের কাজ করছে সেনা। চটজলদি সেই সব এলাকার মধ্যে সড়ক পথেই সংযোগ করা যাবে। এয়ারলিফ্ট ছাড়াই সড়কপথে বহু পর্যটককে উদ্ধারের কাজ চলেছে সোমবারও।

এ দিকে বন্যায় প্রায় উবে যাওয়া ১০ নম্বর জাতীয় সড়কে যানচলাচল ক্রমে স্বাভাবিক হওয়ার পথে। সেনার তৎপরতায় ওই রাস্তা সারানোর কাজ চলেছে। তাই পুজোর সময় উত্তর সিকিম ছাড়া রাজ্যের কোনো অংশেই পর্যটনে কোনো নিষেধাজ্ঞা নেই। তবে উত্তর সিকিমের সঙ্গে সড়কপথে সংযোগ স্থাপন হতে একটা মাস লাগতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

আরও পড়তে পারেন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *