সমস্ত গাড়িতে ‘ফাসট্যাগ’ বাধ্যতামূলক ১ জানুয়ারি থেকে, না থাকলে গুনতে হতে পারে দ্বিগুণ টোলট্যাক্স

ভ্রমণঅনলাইন ডেস্ক: আগামী ১ জানুয়ারি থেকে সমস্ত চার চাকার গাড়িতে ফাসট্যাগ বাধ্যতামূলক হচ্ছে। এ ব্যাপারে নির্দেশিকা জারি করেছে কেন্দ্রের সড়ক পরিবহণ মন্ত্রক। নতুন ব্যবস্থা কার্যকর করার জন্য দেশের বিভিন্ন টোলপ্লাজায় জোর কদমে প্রস্তুতি চলছে। নতুন নিয়মে ফাসট্যাগ না থাকলে দ্বিগুণ টোলট্যাক্স দিতে হতে পারে বলেও শোনা যাচ্ছে।

এমনিতেই ১৫ ডিসেম্বর থেকে টোলপ্লাজার সমস্ত লেনে ক্যাশলেস পদ্ধতি অনুসরণের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তবে কোনো কোনো সময়ের জন্য ক্যাশ লেনগুলিও খোলা হতে পারে। কিন্তু এখনও পর্যন্ত যা পরিসংখ্যান রয়েছে, তাতে স্পষ্ট ২৫ শতাংশ গাড়িতে এখনও ফাসট্যাগ লাগানো হয়নি। ফাসট্যাগ ছাড়া এ ধরনের কোনো গাড়ি টোল প্লাজা অতিক্রম করতে গেলে আগামী ১ জানুযারি থেকে দ্বিগুণ টোলট্যাক্স গুনতে হতে পারে।

কোথায় মিলছে ফাসট্যাগ?

টোলপ্লাজার কর্মীদের বক্তব্য অনুযায়ী, এ ভাবেই টোলট্যাক্স নিয়ে সাধারণ মানুষকে সচেতন করার কাজ চলছে। টোলপ্লাজাগুলিতে সংস্থার প্রতিনিধিরাও উপস্থিত থাকবেন। তাঁরা ফাসট্যাগ লাগানোর প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ করবেন।

এ ছাড়া বিভিন্ন ব্যাঙ্কের তরফেও শিবির করে ফাসট্যাগ বিতরণ করা হচ্ছে। ব্যাঙ্কের শাখা এবং নিজস্ব ওয়েবসাইট থেকেও এই ফাসট্যাগ সংগ্রহ করা সম্ভব। এইচডিএফসি (HDFC), আইসিআইসিআই (ICICI), অ্যাক্সিস (Axis), এসবিআই (SBI), ব্যাঙ্ক অব বরোদা (Bank of Baroda), সিটি ইউনিয়ন ব্যাঙ্ক (City Union Bank)-সহ অন্যান্য ব্যাঙ্ক থেকে এই সুবিধা পাওয়া যাচ্ছে।

কেন্দ্রীয় মোটর ভেহিকল আইন, ১৯৮৯ অনুযায়ী, ২০১৭ সালের ১ ডিসেম্বরের পর কেনা যে কোনো নতুন চার চাকার গাড়িতেই ফাসট্যাগ সরবরাহ বাধ্যতামূলক করা হয়েছে, যা গাড়ি প্রস্তুতকারী সংস্থা অথবা ডিলারের মারফত ক্রেতার হাতে এসে পৌঁছোয়।

পুরোনো গাড়ি নিয়ে সমস্যা

কিন্তু সমস্যা রয়েছে ২০১৭ সালের ১ ডিসেম্বরের আগে কেনা গাড়ির ক্ষেত্রে। একটি পরিসংখ্যান বলছে, প্রতি দিন টোলপ্লাজা দিয়ে যদি ৩৫ হাজার গাড়ি যাতায়াত করে তার মধ্যে অন্তত প্রায় পাঁচ হাজার গাড়িতে ফাসট্যাগ থাকছে না।

ফাসট্যাগ নিয়ে নানা তথ্য

একটি ফাসট্যাগের মেয়াদ পাঁচ বছর। কেনার সময় এককালীন খরচ ২০০ টাকা। এর পর প্রয়োজনমতো এটা রিচার্জ করা যায়।

গাড়ির সামনের দিকে কাচে ফাসট্যাগ স্টিকারটি লাগাতে হয়। সাধারণত গাড়ির ভিতর থেকে উইন্ডশিল্ডের উপরের দিকে মাঝখানে স্টিকারটি আটকাতে হয় (রিয়ার-ভিউ মিরর-এর ঠিক পিছনে)।

আরও পড়ুন: ইন্টারসিটি স্মার্টবাসে ভ্রমণ করলে পাঁচ লক্ষ টাকার ভ্রমণবিমার সুবিধা

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *