তিরুপতির তিরুমালা শহরে রাত-পাহারায় এক জোড়া ভাল্লুক

ভ্রমণ অনলাইন ডেস্ক: করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে মানুষ যখন ঘরবন্দি, তখন বন্যপ্রাণীরা উপভোগ করছে স্বাধীনতা আর প্রমাণ করছে মানুষের ভয়েই তারা লুকিয়ে থাকে।

যে জায়গা পর্যটকদের ভিড়ে গমগম করে ওড়িশার সেই গহিরমাথা আর  রুষিকুল্যা সৈকতে লাখে লাখে আসছে অলিভ রিডলে, বাণিজ্যিক রাজধানী মুম্বইয়ের সৈকতের কাছেই সমুদ্রে নাচছে ডলফিন, হিমালয়ের জঙ্গলে দেখা মিলছে বিরল প্রজাতির স্নো লেপার্ডের, সাজানোগোছানো শহর চণ্ডীগড়ের অ্যাপার্টমেন্টে ঢুকে পড়ছে চিতাবাঘ, দক্ষিণের সমুদ্রোপকূলবর্তী শহর কোড়িকোড়ের রাস্তায় ঘুরে বেড়াচ্ছে ভামবিড়াল, দিল্লি লাগোয়া শিল্পশহর নয়ডার শপিং মলে ঢুকছে নীলগাই, হিমালয়ের পাদদেশে তীর্থশহর হরিদ্বারের রাস্তায় বেড়াচ্ছে হরিণের দল আর গঙ্গায় স্নান করছে বন্যহাতি – উদাহরণের শেষ নেই। এ বার দক্ষিণের অত্যন্ত জনপ্রিয় মন্দির-শহরে দেখা গেল ভাল্লুক।

আইএফএস (ইন্ডিয়ান ফরেস্ট সার্ভিস) অফিসার সুশান্ত নন্দ একটি ভিডিও পোস্ট করেছেন। তাতে দেখা যাচ্ছে তিরুপতি মন্দিরের শহর তিরুমালায় ঘুরে বেড়াচ্ছে এক জোড়া ভাল্লুক।

ভিডিওয় দেখা যাচ্ছে, এক জোড়া ভাল্লুক জনমানবশূন্য তিরুমালা শহরে রাস্তা পার হচ্ছে, কোন ঠিকানা খুঁজছে তারা? ভিডিও পোস্ট সুশান্ত নন্দ লিখেছেন, ভগবানের এই আবাসে সব কিছু ঠিকঠাক চলছে কিনা তা দেখতে এক জোড়া ভাল্লুক তিরুমালায় হাঁটাচলা করছে। আইএফএস অফিসারের এই ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় আলোড়ন সৃষ্টি করেছে।

আরও পড়ুন: লকডাউনের জের, কেদার-বদরীর আনুষ্ঠানিক দ্বারোন্মোচন নিয়ে প্রশ্ন

তিরুমালা বিখ্যাত তিরুপতি মন্দিরের জন্য। এই মন্দিরে বিষ্ণুর অবতার ভগবান বেঙ্কটেশ্বরের বাস। আর সম্পদের হিসেবে ভারতের সব চেয়ে ধনী দেবতা। করোনাভাইরাসের জেরে ১২৮ বছরের ইতিহাসে এই প্রথম মন্দির পুরোপুরি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

Leave a Reply