আমাদের বাছাই পশ্চিমবঙ্গ পাহাড়

স্বল্পচেনা উত্তরবঙ্গ: রূপসী ডুয়ার্সের স্বর্গ সুন্দরী লেপচখা

ভ্রমণঅনলাইন ডেস্ক: আপনি যদি ডুয়ার্সপ্রেমী হন, তা হলে লেপচখার নাম হয়তো শুনেছেন। আর যদি না শোনেন, তা হলে জানলে খুশিই হবেন, যে ডুয়ার্সকে উপভোগ করতে হলে লেপচখা একবার যাওয়া উচিতই। জায়গাটিকে ডুয়ার্সের স্বর্গ বলে অভিহিত করা হয়।

আদিবাসী ছোট্ট গ্রাম লেপচখায় থাকলে আপনার মনে হবে হয়তো ভুটানের কোনো জায়গায় রয়েছেন। অতীতে লেপচখা ভূটানের অধীনে ছিল। পরবর্তীতে ইংরেজ শাসন কালে ভারতের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে। এই গ্রামের প্রবেশদ্বারেই রয়েছে একটি মনাস্টেরি।

সমুদ্রতল থেকে এই লেপচখার উচ্চতা প্রায় সাড়ে তিন হাজার ফুট। ফলে আবহাওয়া মনোরম। শান্ত ও নিরিবিলি এই গ্রামে থেকে বক্সার জঙ্গলটাকে খুব সুন্দর দেখায়। বক্সার জঙ্গলের সঙ্গে লক্ষ করুন পুব দিকের সংকোশ নদী এবং পশ্চিমের তোর্সা নদীকে। আবার সন্ধ্যাবেলায় ঠিক একই জায়গা থেকে দেখুন আলিপুরদুয়ার এবং হাসিমারা শহরের রোশনাই।

উপভোগ করুন পাখির কলতান। এক কথায় পাখির স্বর্গরাজ্য বলা যেতে পারে এই লেপচখাকে। ধনেশ, মোহনচূড়া-সহ নানা রকম পাখির দেখা পেয়ে যাবেন।  

‘ওম মণি পদ্মে হুঁম’-এর সুরে ভোর হয় এখানে। সে আরও এক অনন্য অভিজ্ঞতা। এখান থেকে মহাকাল মন্দির ঘুরে ট্রেক করে আপনি পৌঁছে যেতে পারেন জয়ন্তীও। আর যাঁরা জয়ন্তীতে রাত কাটানোর জন্য যাচ্ছেন, তাঁরাও একবার ট্রেক করে ঘুরে আসতে পারেন লেপচখা।

আরও পড়ুন স্বল্পচেনা উত্তরবঙ্গ: ঘুমন্ত বুদ্ধকে উপভোগ করতে চলুন ধোতরে

তবে মনে রাখবেন, এই গ্রামে পৌঁছোতে হয় পায়ের ভরসায়। মানে আপনি যদি গাড়িতে আসেন, তা হলে গাড়িকে রেখে আসতে হবে বক্সা ফোর্টের আগে জিরো পয়েন্টে। তার পর ৫ কিমি খাড়াই পথ অতিক্রম করে পৌঁছে যাবেন লেপচখা। তবে লেপচখার পরিবেশ আপনার পথের ক্লান্তি ভুলিয়ে দিতে বাধ্য।

কী ভাবে যাবেন

দেশের যে কোনো প্রান্ত থেকে আপনাকে পৌঁছতে হবে আলিপুরদুয়ার। আপনি যদি ট্রেনে আসতে চান তা হলে erail.in ওয়েবসাইট থেকে আলিপুরদুয়ার বা নিউ আলিপুরদুয়ার সংক্রান্ত ট্রেনের তথ্য নিয়ে নিন। আর যদি বিমানে আসতে চান, তা হলে আপনাকে বাগডোগরা বিমানবন্দরে নেমে আলিপুরদুয়ার আসতে হবে। আলিপুরদুয়ার থেকে যদি গাড়ি করেন, তা হলে বক্সা ব্যঘ্রপ্রকল্পের অন্তর্গত সান্তালাবাড়ি পৌঁছে, সেখান থেকে অনুমতি নিয়ে জিরো পয়েন্ট পৌঁছে যান। জিরো পয়েন্টে আপনাকে গাড়ি ছেড়ে দিতে হবে। তার পর পদব্রজে পাড়ি দিতে হবে। আলিপুরদুয়ার থেকে জয়ন্তী বা বক্সা প্রকল্পের ঠিক বাইরের রাজাভাতখাওয়ার বাসও রয়েছে।

কোথায় থাকবেন

লেপচখায় থাকার জন্য ভরসা হোমস্টে। উল্লেখযোগ্য কয়েকটি হোমস্টে হল: ট্রেকার্স ইন (৯৫৬৩৩১৬৩৭৬/৮৫১২৯২৪৮৮২), বেবি ওয়াংমো হোমস্টে (০৩৫৬৬-২০৮০০০), জাংমো হোমস্টে (৮৫১৩৯১৫৮৪৭), পামশা হোমস্টে (০৭৬৯৯৮১৫৪৩৫)।

Booking.com
1 Comment
  1. GOBINDA CHANDRA GHOSH 5 days ago
    Reply

    Provide details about Kashmir Bhramon.

Leave a Comment

Your email address will not be published.

You may also like