Categories
সপ্তাহান্তে

দোলের সপ্তাহান্তে চলুন বিচিত্রপুর

ভ্রমণ অনলাইন ডেস্ক: দোল-হোলি এ বার সপ্তাহের শেষে। সব মিলিয়ে চার দিন ছুটি – ২১ মার্চ থেকে ২৪ মার্চ (বৃহস্পতিবার থেকে রবিবার)। হঠাৎ মনে হয়েছে কোথাও গেলে হয়? কিন্তু হাতে তো আরও মাত্র একটা সপ্তাহ। এখন কোন ট্রেনেই বা আসন পাবেন? কাছেপিঠে এমন একটা জায়গা বেছে নিলে হয় না, যেখানে যাওয়ার জন্য ট্রেনে আগাম সংরক্ষণের দরকার নেই? এমনই একটা জায়গা ওড়িশার বিচিত্রপুর। বৃহস্পতিবার ভোরেই বেরিয়ে পড়ুন, রবিবার রাতে ফিরে আসুন। তিনটে দিন উপভোগ করে আসুন বিচিত্রপুরের প্রকৃতি।  

Boating at Bichitrapur
বিচিত্রপুরে নৌকাবিহার।

কেন যাবেন বিচিত্রপুর

প্রকৃতির উপহার বিচিত্রপুর। বঙ্গোপসাগরের উপকূলে, যেখানে সুবর্ণরেখা নদী পড়েছে সাগরে, সেখানেই বিচিত্রপুর – ম্যানগ্রোভ জঙ্গলের জন্য এর খ্যাতি। তা ছাড়া সমুদ্রসৈকত, ক্যাজুরিনার জঙ্গল, লাল কাঁকড়ার অভিসার তো আছেই। নৌকা চড়ে ঘুরুন ম্যানগ্রোভের জঙ্গলে। নৌকা চলে সকাল সাড়ে ১০টা থেকে বিকেল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত, ওড়িশা ইকোট্যুরিজমের ব্যবস্থাপনায়। নৌকার টিকিট পাওয়া যায় বিচিত্রপুরেই। নিরালা, নিরিবিলি বিচিত্রপুরে প্রকৃতির মাঝে থেকে উপভোগ করুন পূর্ণিমার রাত। কাছেপিঠে বেশ কিছু ঘোরার জায়গাও আছে। খড়িবিলে ওই অঞ্চলের জীববৈচিত্র্য বোঝার জন্য রয়েছে ইন্টারপ্রিটেশন সেন্টার।     

আশেপাশের আরও দ্রষ্টব্য

১। তালসারি সৈকত – ১০ কিমি

২। চন্দনেশ্বর মন্দির – ৭ কিমি, তালসারির পথেই।

udaipur beach
উদয়পুর সৈকত।

৩। উদয়পুর সৈকত – ওড়িশা-পশ্চিমবঙ্গ সীমানায়।

৪। ভূষণ্ডেশ্বর মন্দির – উপমহাদেশের সব চেয়ে বড়ো শিবলিঙ্গ, ১২ কিমি।

এ ছাড়া দিঘা, শংকরপুর, তাজপুর, মন্দারমণি তো আছেই। বিচিত্রপুর থেকে সব চেয়ে দূরের জায়গা মন্দারমণি, ৪২ কিমি।

কোথায় থাকবেন

ওড়িশা ফরেস্ট ডেভেলপমেন্ট কর্পোরেশনের ইকোট্যুরিজমের এসি কটেজ। দু’ জনের থাকার খরচ ৩৮৯৪ টাকা (কর-সহ সব কিছু নিয়ে। এর মধ্যে দু’জনের প্রাতরাশ, মধ্যাহ্নভোজ এবং রাতের খাবারের খরচ ধরা আছে। মোহনায় এক বার নৌকাবিহারের খরচও ধরা আছে।) অনলাইন বুকিং https://www.ecotourodisha.com/

কী ভাবে যাবেন

১। হাওড়া থেকে সকাল ৬টায় ধৌলি এক্সপ্রেস ধরুন, জলেশ্বর পৌঁছে দেবে সকাল ৮টা ৪৭ মিনিটে। সেখান থেকে বিচিত্রপুর ৪০ কিমি, গাড়িতে।

২। কলকাতা/হাওড়া থেকে বাসে বা ট্রেনে দিঘা চলুন। সেখান থেকে ভ্যান রিকশা, অটো বা গাড়িতে চলুন বিচিত্রপুর, ১৫ কিমি।

ecotourism cottage
ইকোট্যুরিজমের কটেজ।

কী ভাবে ফিরবেন

১। জলেশ্বরে ডাউন ধৌলি এক্সপ্রেস আসে বিকেল ৪.৫৭ মিনিটে, হাওড়া পৌঁছে দেয় রাত ৮.১৫ মিনিটে।

২। দিঘা হয়ে বাসে বা ট্রেনেও ফিরতে পারেন।

কী ভাবে ঘুরবেন

কাছেপিঠের জায়গাগুলো ভ্যানরিকশায় ঘুরে নিতে পারেন। শংকরপুর, তাজপুর, মন্দারমণি এলে গাড়ি ভাড়া করে নেবেন।      

মনে রাখবেন

১। দোলের দিন সকালের দিকে বাস চলাচল বন্ধ থাকলেও ভাড়া গাড়ি বা ট্যাক্সি পেতে অসুবিধা হয় না।

২। তবু যদি মনে করেন দোলের দিন নিজের জায়গায় কাটিয়ে পরের দিন যাবেন, সে ক্ষেত্রে বিচিত্রপুরে থাকার মেয়াদ ৩ রাত থেকে কমিয়ে ২ রাত করে নিতে পারেন।

Categories
অন্য রাজ্য সপ্তাহান্তে

সুন্দরবন ছাড়াও ঘরের কাছে রয়েছে আরও এক ম্যানগ্রোভ অরণ্য, এই সপ্তাহান্তে চলুন…

ভ্রমণঅনলাইন ডেস্ক: দিঘা তো আমবাঙালির যাওয়া লেগেই থাকে। দিঘা থেকে ওড়িশায় ঢুঁ মেরেও আসেন অনেকেই। সে সীমান্তের সৈকত উদয়পুর হোক বা তালসারি। কিন্তু এর বাইরেও আরও একটি জায়গা আছে, দিঘা থেকে মাত্র ১৬ কিমি দূরে। ম্যানগ্রোভ অরণ্যে ঘেরা বিচিত্রপুর।

আরও পড়ুন কাঁকসা, দেউল ও কেঁদুলির জয়দেব

একেবারে নতুন পর্যটনকেন্দ্র হিসাবে ওড়িশা সরকার গড়ে তুলছে বিচিত্রপুরকে। তালসারি নয়, এই বিচিত্রপুরেই বঙ্গোপসাগরে মিশেছে সুবর্ণরেখা। স্পিড বোটে করে সুবর্ণরেখা ধরে বঙ্গোপসাগরের মোহনা পর্যন্ত নিয়ে যাওয়া হয়। 

bichitrapur

স্পিড বোটে চড়ে যাওযার সময়ে অনেকটা সুন্দরবনের খাঁড়ির মধ্যে দিয়ে যাওয়ার মতো অভিজ্ঞতা এবং রোমাঞ্চ অনুভব করবেন। দু’দিকে ম্যানগ্রোভের জঙ্গল। তফাৎ বলতে শুধু বাঘটাই যা নেই। মোহনা থেকে আপনি এক দিকে দেখতে পারবেন বঙ্গোপসাগরকে, অন্য দিকে সুবর্ণরেখাকে। 

বর্ষাকাল এবং শীতকালের সৌন্দর্য অতুলনীয়। শীতে পরিযায়ী পাখিদের দেখা মেলে এখানে।

কী ভাবে যাবেন

ট্রেনে বা বাসে দিঘা চলুন। দিঘা থেকে বিচিত্রপুর ১৬ কিমি। গাড়ি ভাড়া করে চলে আসতে পারেন। কিংবা কলকাতা থেকে সরাসরি গাড়িতে চলুন, কোলাঘাট-মেচেদা-নন্দকুমার-দিঘা-চন্দনেশ্বর হয়ে।

কোথায় থাকবেন

bichitrapur

অনেকের কাছে দিঘা থেকে শুধু ঘণ্টা দুয়েকের সাইটসিয়িং হতে পারে এই বিচিত্রপুর। কিন্তু এখানে একটা দিন থাকলে খুব ভালো লাগবে। এখানে থাকার জন্য রয়েছে ওড়িশার বনোন্নয়ন নিগমের বিচিত্রপুর নেচার ক্যাম্প। থাকা এবং খাওয়া নিয়ে দ্বিশয্যা এসি কটেজের ভাড়া তিন হাজার টাকা। অনলাইনে বুক করার জন্য লগইন করুন www.ecotourodisha.com