Categories
ভ্রমণের খবর

আর বছর তিনেক, এর পরই দিল্লি থেকে কাটরা পৌঁছে যাবেন সাড়ে ৬ ঘণ্টায়

ভ্রমণঅনলাইন ডেস্ক: জম্মু থেকে কাটরা হয়ে বৈষ্ণোদেবী যেতে হয়। বছর তিনেক পরে আর ওই পথে না গেলেও চলবে। দিল্লি থেকে সরাসরি সড়কপথে সাড়ে ছ’ ঘণ্টার মধ্যে পৌঁছে যাবে কাটরা। তৈরি হচ্ছে দিল্লি-কাটরা এক্সপ্রেস রোড করিডোর। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জিতেন্দ্র সিংহ যে ঘোষণা করেছেন তা থেকে এটাই মনে হয়।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বলেছেন, দিল্লি-কাটরা এক্সপ্রেস রোড করিডোরের কাজ শুরু হয়েছে। ২০২৩ সালের মধ্যে এই সড়কের নির্মাণকাজ শেষ হয়ে যাবে বলে মন্ত্রী জানিয়েছেন।  

দিল্লি-কাটরা রাস্তা তৈরি হয়ে গেলে পর্যটকরা বা তীর্থযাত্রীরা দিল্লি থেকে ট্রেন বা বিমানের বদলে সড়কপথই যে বেছে নেবেন, তা বলাই বাহুল্য।

এই এক্সপ্রেস রোড করিডোর তৈরি হয়ে গেলে এক্সপ্রেসওয়ের মাধ্যমে অমৃতসরের সঙ্গে কাটরার যোগসূত্র স্থাপিত হবে। তীর্থযাত্রীরা চাইলে একই সঙ্গে অমৃতসর ও বৈষ্ণোদেবী দর্শন করতে পারবেন।

আরও পড়ুন: দক্ষিণ কলকাতার তিন পুজোয় এ বার ‘ড্রাইভ-ইন দর্শন’, থিমে সত্যজিৎ রায়কে স্মরণ

দিল্লি-কাটরা এক্সপ্রেস রোড করিডোরের বৈশিষ্ট্য –

(১) এই সড়ক দিল্লি থেকে শুরু হয়ে লুধিয়ানার কাছে নকোদরের কাছে দু’ ভাগ হবে – একটি পথ সরাসরি যাবে কাটরা, অন্যটি যাবে অমৃতসর হয়ে।

(২) দুই তীর্থ-শহর অমৃতসর ও কাটরার সংযোগসাধন করবে এই সড়ক।

(৩) এই এক্সপ্রেস রোড করিডোর নির্মাণে খরচ ধরা হয়েছে ৩৫ হাজার কোটি টাকা।

(৪) এই সড়ক তৈরি হয়ে গেলে দিল্লি থেকে কাটরার দূরত্ব ৭২৭ কিমি থেকে কমে ৫৮৮ কিমি হবে এবং দিল্লি থেকে অমৃতসরের দূরত্ব দাঁড়াবে ৪০৫ কিমি।

(৫) দিল্লি থেকে কাটরা সাড়ে ৬ ঘণ্টায় পৌঁছে যাওয়া যাবে, অমৃতসর পৌঁছে যাওয়া যাবে ৪ ঘণ্টায়।

(৬) দিল্লি, অমৃতসর ও কাটরা ছাড়াও এই সড়কপথে যুক্ত হবে জলন্ধর, কাপুরথালা, লুধিয়ানা, গুরদাসপুর প্রভৃতি জায়গা।

এখন দিল্লি থেকে কাটরা যাওয়ার জন্য রয়েছে রাজধানী এক্সপ্রেস আর বন্দে ভারত এক্সপ্রেস। এ ছাড়া কিছু উড়ানও চলাচল করে।             

Categories
কেনাকাটা ভ্রমণের খবর

দরিয়াগঞ্জের রবিবারের বইবাজার পেল নতুন ঠিকানা

ভ্রমণঅনলাইনডেস্ক: জুলাই মাসে বন্ধ হয়ে যাওয়া দিল্লির দরিয়াগঞ্জের রবিবারের বইয়ের বাজার পেল নতুন ঠিকানা। এই নতুন ঠিকানা হোল দিল্লি গেট মেট্রো স্টেশনের কাছে আসফ আলি রোডে, মাহিলা হাটে। দিল্লি হাইকোর্টের নির্দেশে দোকানগুলি বন্ধ হয়ে গেলেও বইপ্রেমীদের কথা চিন্তা করে নতুন জায়গায় ফের খোলা হয়েছে দোকানটি।

daryaganj book bazar
এই ছিল দরিয়াগঞ্জ বইবাজার। ছবি সৌজন্যে দ্য হিন্দুস্তান টাইমস।

৫০ বছরের পুরোনো এই বইপাড়ার কোনো দোকান কোনো দিন বন্ধ হয়নি। কিন্তু এ বছরের ২৬ জুলাই আদালতের নির্দেশে এই বাজার বন্ধ হয়ে যায়। এখানে বইয়ের দোকান ছিল ২৭৬টি।  ট্রাফিকের সমস্যা হচ্ছে বলে বইয়ের দোকানগুলি উঠিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়।

দরিয়াগঞ্জের বই বাজার বন্ধ করে দেওয়ার জন্য ৩ জুলাই আদালত থেকে নির্দেশ আসে। তাতে আরও বলা হয়, জামা মসজিদের কাছের বইয়ের দোকানগুলিও বন্ধ করে দিতে হবে। জানা গিয়েছে, দিল্লি ট্রাফিক পুলিশ আদালতে এই মর্মে একটি রিপোর্ট জমা দিয়েছিল। তাতে বলা হয়েছিল,  বইয়ের দোকানগুলির জন্য সারা দিন ধরে এই অঞ্চলে ট্রাফিক সমস্যা হয় এবং তা এক এক সময় নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়। এর পরেই ওই বইবাজার তুলে দেওয়ার জন্য দিল্লি মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনকে নির্দেশ দেওয়া হয়।

কিন্তু গত ১৫ সেপ্টেম্বর রবিবার দেখা গেল, দরিয়াগঞ্জ বইবাজারের ২৭৬ জন ব্যবসায়ীর মধ্যে ১৩৯ জন আসফ আলি রোডে মাহিলা হাটে আবার নতুন করে বইয়ের দোকান খুলছেন। মাহিলা হাটের মালিক দিল্লি মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশন বইব্যবসায়ীদের সেখানে দু’ বছরের জন্য লিজে স্টল চালানোর অনুমতি দিয়েছে। প্রতি দিন ২০০ টাকা করে ভাড়া দিয়ে তাঁরা ওখানে প্রতি রবিবার দোকান সাজিয়ে বসতে পারবেন। বর্তমান লিজের মেয়াদ শেষ হয়ে গেলে লিজ আরও দু’ বছর বাড়ানো হবে।

আরও পড়ুন: চলুন ঘুরে আসা যাক ভরতপুরের রাজাদের গ্রীষ্মাবাস ডীগে

এই ব্যবস্থায় বেশ কিছু বইব্যবসায়ী খুশি নন। তাঁরা আদালতের নির্দেশের বিরুদ্ধে পথে নামেন এবং আসফ আলি রোডে মানবশৃঙ্খলও তৈরি করেন।  তাঁদের দাবি,  রবিবারের বইবাজারের জন্য তাঁদের গোলচা এবং ডিলাইট সিনেমা হলের মাঝের রাস্তায় বসতে দেওয়া হোক। 

Categories
ভ্রমণের খবর

রামায়ণ এক্সপ্রেসে সফর করতে চান, এই তথ্যগুলো জেনে নিন

ভ্রমণ অনলাইনডেস্ক: বুধবার যাত্রা শুরু করেছে রামায়ণকে কেন্দ্র করে দেশের প্রথম পর্যটন ট্রেন ‘শ্রী রামায়ণ এক্সপ্রেস’। দিল্লিতে এই ট্রেনের যাত্রার সূচনা করেন রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়াল। মোট ১৬ দিনের এই প্যাকেজ ট্যুরে রামের সঙ্গে সম্পর্কিত অনেক জায়গাই ঘুরিয়ে দেখানো হবে ট্রেনে।

যে পথ দিয়ে যাবে রামায়ণ এক্সপ্রেস

রামায়ণ এক্সপ্রেসে ভ্রমণের দুটো অংশ রয়েছে। একটি ভারত এবং অন্যটি শ্রীলঙ্কায়। ভারতের বেশকিছু শহর থেকে এই ট্রেন যাত্রা শুরু করেছে। তবে দিল্লি থেকে যে ট্রেন রওনা হয়েছে, সেটি প্রথমে থেমেছে অযোধ্যায়। রামচন্দ্রের জনস্থান ঘুরিয়ে ট্রেনটির থামার কথা হনুমান গড়ি রামকোট এবং কনক ভবন মন্দির স্টেশনে। এর পর ট্রেনটি নন্দিগ্রাম, সীতামাঢ়ি, বারাণসী, জনকপুর, শিংবেরপুর, নাসিক, প্রয়াগ, চিত্রকূট, হাম্পি এবং রামেশ্বরমে ট্রেনটি যাবে।

আরও পড়ুন গাড়োয়ালের অলিগলিতে / প্রথম পর্ব : ধনৌলটি ছুঁয়ে নিউ টিহরী

ট্রেন যাত্রার ভাড়া

মোট ৮০০ জন যাত্রী এই ট্রেনে যেতে পারে। ভারতের অংশে ঘোরার জন্য জনপ্রতি ১৫,১২০ টাকা নেওয়া হচ্ছে। এই ভাড়ায় থাকা, খাওয়া-সহ যানবাহনের যাবতীয় খরচ ধরা রয়েছে। তবে এই সফরের শ্রীলঙ্কা অংশটির ভাড়া আলাদা ভাবে নেওয়া হবে। শ্রীলঙ্কায় যাঁরা যেতে চান, তাঁদের চেন্নাই থেকে কলম্বোর বিমানে উঠতে হবে। পাঁচ রাত্রি, ছ’দিনের প্যাকেজে কলম্বো ছাড়াও ক্যান্ডি এবং শৈলশহর নুয়ারা এলিয়াও ঘোরানো হবে। এর জন্য জনপ্রতি ৩৬, ৯৭০টাকা বাড়তি দিতে হবে।

আপাতত দিল্লি থেকে এই ট্রেন যাত্রা শুরু করলেও আগামী কয়েকদিনের মধ্যে জয়পুর, রাজকোট এবং মাদুরাই থেকেও এই ট্রেন যাত্রা শুরু করবে।

Categories
ভ্রমণের খবর

আরও তিনটি রামায়ণ এক্সপ্রেস চালু করছে রেল

ওয়েবডেস্ক: আগামী ১৪ নভেম্বর দিল্লি থেকে চেন্নাইয়ের উদ্দেশে যাত্রা শুরু করার কথা প্রথম রামায়ণ এক্সপ্রেসের। কিন্তু তার আগেই আরও তিনটে রামায়ণ এক্সপ্রেসের কথা ঘোষণা করে দিল ভারতীয় রেল।

এই তিনটে ট্রেন রওনা হবে যথাক্রমে রাজকোট, জয়পুর এবং মাদুরাই থেকে। চারটে ট্রেনের যাত্রা পথে থাকবে অযোধ্যা।

রামায়ণের সঙ্গে কোনো না কোনো ভাবে যুক্ত মহারাষ্ট্রের নন্দিগ্রাম, নাসিক, বিহারের সীতামাঢ়ি, জনকপুর, উত্তরপ্রদেশের বারাণসী, ইলাহাবাদ, চিত্রকূট, কর্নাটকের হাম্পি এবং তামিলনাড়ুর রামেশ্বরম শহরগুলি বা তাদের নিকটবর্তী রেলস্টেশনে পৌঁছোবে এই ট্রেন। প্রতিবেশী দেশ শ্রীলঙ্কায়ও নিয়ে যাওয়ার কথা পর্যটকদের।

তবে যাত্রীদের দাবি মেনে অন্যান্য কিছু স্টেশনেও এই ট্রেন দাঁড়াতে পারে। দিল্লি-চেন্নাই রামায়ণ এক্সপ্রেসের যাত্রা শুরুর দিন, অর্থাৎ ১৪ নভেম্বরই মাদুরাই থেকেও যাত্রা শুরু করবে রামায়ণ এক্সপ্রেস। ভারত ও শ্রীলঙ্কা মিলিয়ে মোট ১৬ দিনের ট্যুর।

আরও পড়ুন রাতে পাহাড়ি পথে ভ্রমণ নয়, পরামর্শ পূর্ব হিমালয়ের ট্যুর অপারেটরদের

এক একটি ট্রেন এক সঙ্গে ৮০০ জন যাত্রীকে নিয়ে যেতে পারবে। দিল্লি থেকে যাত্রা শুরু করা রামায়ণ এক্সপ্রেসে জনপ্রতি খরচ ১৫,১২০ টাকা। মাদুরাই থেকে যাত্রা শুরু করা ট্রেনে জনপ্রতি খরচ ১৫,৮৩০ টাকা। এই খরচ অবশ্য শুধু ভারত অংশের জন্য।

রেলের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, ২২ নভেম্বর জয়পুর এবং ৭ ডিসেম্বর রাজকোট থেকে যাত্রা সূচনা হবে রামায়ণ এক্সপ্রেসের। রেলের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, ধর্মীয় পর্যটনের প্রতি মানুষের আগ্রহ যথেষ্ট বেশি রয়েছে। এই পরিস্থিতিকে কাজে লাগিয়ে রেলের আয় বাড়ানোর জন্যই নতুন তিনটে রামায়ণ এক্সপ্রেস নামাচ্ছে তারা।

Categories
ভ্রমণের খবর

ভারতের ১৭টা দ্রষ্টব্য স্থানকে ‘আইকনিক পর্যটন কেন্দ্র’ হিসেবে উন্নীত করা হবে

ভ্রমণঅনলাইন ডেস্ক: ভারতের ১৭টা দ্রষ্টব্য স্থানকে ‘আইকনিক পর্যটন কেন্দ্র’ হিসেবে উন্নীত করা হবে। এই মর্মে একটি বিবৃতি প্রকাশ করেছে কেন্দ্রীয় পর্যটন মন্ত্রক।

এই স্থানগুলি হল, উত্তরপ্রদেশের তাজ মহল ও ফতেপুর সিকরি, মহারাষ্ট্রের অজন্তা ও ইলোরা, দিল্লির লাল কেল্লা, হুমায়ুনস টম্ব ও কুতব মিনার, গোয়ার কোলভা সৈকত, রাজস্থানের আমের বা অম্বর কেল্লা, গুজরাতের সোমনাথ ও ধোলাভিরা, মধ্যপ্রদেশের খাজুরাহো, কর্নাটকের হাম্পি, তামিলনাড়ুর মহাবলিপুরম, কেরলের কুমারাকোম, অসমের কাজিরাঙা এবং বিহারের মহাবোধি।

আরও পড়ুন উটি, কোদাইকানালের বাইরে ঘুরে নিন তামিলনাড়ুর আরও অসংখ্য হিল স্টেশন

এই সংক্রান্ত যে বিবৃতি প্রকাশ করা হয়েছে সেখানে বলা হয়েছে, “এই কেন্দ্রগুলিকে শ্রেষ্ঠত্বের প্রতীক হিসেবে সাজিয়ে তুলবে মন্ত্রক। এখানে যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নীত করা হবে। পর্যটকদের আরও ভালো পরিষেবার ব্যবস্থা করা হবে। এই জায়গাগুলির উন্নতিতে স্থানীয় মানুষকে আরও বেশি করে কাজে লাগাতে হবে।”

যে কেন্দ্রগুলিকে উন্নীত করা হবে সেগুলো আর্জিওলজিকাল সার্ভের (এএসআই) তত্ত্বাবধানে রয়েছে। এএসআই এবং সংশ্লিষ্ট রাজ্যের সঙ্গে আলোচনা করেই এই স্থানগুলি উন্নীত করার কাজে নামবে কেন্দ্র।

Categories
ভ্রমণের খবর

টুরিস্ট ট্রেন রামায়ণ এক্সপ্রেসে ভ্রমণ করবেন না কি? জেনে নিন বিস্তারিত তথ্য

ওয়েবডেস্ক: পর্যটকদের জন্য বিশেষ ট্রেন ‘শ্রী রামায়ণ এক্সপ্রেস’-এর ঘোষণা করেছে রেল। দিল্লি থেকে যাত্রা শুরু করে অযোধ্যা হয়ে রামেশ্বরম পর্যন্ত যাবে এই ট্রেন। তারপর আইআরসিটিসির ব্যবস্থাপনায় পর্যটকদের কলম্বোয় পৌঁছে দেওয়া হবে। এমনই জানিয়েছেন রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়াল। 

এই ট্রেনের ব্যাপারে বিস্তারিত তথ্য জেনে নিন

১) আইআরসিটিসি ট্যুরিজমের তরফ থেকে জানানো হয়েছে এই বিশেষ ট্রেনটি দিল্লি থেকে রামেশ্বরম পর্যন্ত যাবে। পথে রামায়ণ সম্পর্কিত যাবতীয় টুরিস্ট স্পটের ওপর দিয়ে যাবে এই ট্রেন। বিশেষ ব্যবস্থা থাকছে কলম্বো যাওয়ার জন্যও। 

২) দিল্লি সাফদরজং স্টেশন থেকে ১৪ নভেম্বর যাত্রা শুরু করবে এই ট্রেন। প্রথম গন্তব্য হবে অযোধ্যা। 

৩) রামেশ্বরমের পথে এই ট্রেনের গন্তব্য সীতামাঢ়ি, জনকপুর, বারাণসী, প্রয়াগ, শৃঙ্গবেরপুর, চিত্রকূট, হাম্পি, নাসিক এবং রামেশ্বরম। যে সব জায়গায় রেল স্টেশন নেই, তার নিকটবর্তী স্টেশন পর্যন্ত যাবে এই ট্রেন। তারপর গাড়িতে নিয়ে যাওয়া হবে পর্যটকদের। 

৪) ইচ্ছুক যাত্রীদের চেন্নাই থেকে বিমানে কলম্বো নিয়ে যাওয়া হবে। 

৫) এই ট্রেনে আসন সংখ্যা ৮০০। 

৬) এই প্যাকেজে যাত্রা, রাত্রিবাস, সাইটসিয়িং-এর যাবতীয় খরচা ধরা রয়েছে। 

৭) ভারত এবং শ্রীলঙ্কা মিলিয়ে মোট ১৬ দিনের এই ভ্রমণ। শুধুমাত্র ভারতের অংশের জন্য এই প্যাকেজের ভাড়া জনপ্রতি ১৫,১২০ টাকা। শ্রীলঙ্কা ভ্রমণের ভাড়া অতিরিক্ত। 

৮) বিস্তারিত জানার জন্য দেখুন আইআরসিটিসি ট্যুরিজমের ওয়েবসাইট www.irctctourism.com-এ।