বেড়াতে গিয়ে শরীরটা ফিট রাখতে হবে তো? জেনে নিন ৫টি পদ্ধতি

  • by
stay fit during travel

ভ্রমণঅনলাইনডেস্ক: ব্যস্ততার মাঝে ছুটির তো প্রয়োজন হয়ই। আর সবাই চান যে ছুটিতে কোথাও বেড়িয়ে আসতে। পুজোর ছুটিতে কোথাও ঘুরতে যাওয়ার পরিকল্পনা করা আছে নিশ্চয়ই? তা হলে দেরি কিসের? ব্যাগ গুছিয়ে নিন চটপট।

আরও পড়ুন: শিলং যাচ্ছেন? উমিয়াম লেকে ‘অটম ফেস্টিভ্যাল’-এ যেতে ভুলবেন না

কিন্তু ছুটিতে ঘুরতে গিয়ে বা ছুটি নিয়ে বাইরে কোথাও নির্ভেজাল বিশ্রাম নিতে গিয়ে আমরা হঠাৎ করেই রোজই ভালো ভালো খাবার খেয়ে ফেলি এবং তার জন্য নিই না কোনো রকম সতর্কতা। সারা দিনের ব্যস্ততার মধ্যে যেখানে খাওয়ার সময়টাও ঠিকমতো পাই না, সেখানে ছুটির দিনে বিশেষ করে বাঙালিদের লুচি আলুর দম ছাড়া জলখাবার বা দুপুরে ভাতের সঙ্গে কষা মাংস ছাড়া চলে না। আবার ঘুরতে গিয়েও সেখানকার বিশেষ খাবারগুলি তো খেয়ে দেখতেই হবে। আর তাই জন্য ঘুরে আসার পরে অনেকেরই ওজন বেড়ে যায়। খাওয়া তো বাদ দেওয়া যায় না, সেই সঙ্গে কিন্তু আরও কয়েকটি জিনিসও ছুটির দিনে বাদ দেওয়া উচিত নয়। কী বলুন তো? চলুন দেখে নেওয়া যাক সেগুলি কী কী।

হাঁটাহাঁটি করুন

ঘুরতে গেলে বেশির ভাগ জায়গাতেই গাড়ি নিয়ে ঘোরা হয়। খুব দূরের জায়গায় তো গাড়িতে যেতে হয়ই তবে চেষ্টা করুন যাতে স্থানীয় জায়গাগুলো হেঁটে হেঁটে ঘুরতে। এর সুবিধা দু’টি, আপনার হাঁটার জন্য ক্যালোরিও কিছুটা কমল, আবার রাস্তার প্রাকৃতিক সৌন্দর্যও আপনি উপভোগ করতে পারলেন। গাড়িতে ঘুরলে যে জায়গাগুলো আপনি এক ঝলক দেখতে পেতেন, সেগুলো আপনি অনেকক্ষণ ধরে দেখতে পেলেন। আর গাড়ি করে ঘুরলেও চেষ্টা করবেন অন্তত ১ কিলোমিটার ট্রেক করে যেতে হবে, এমন কোনও জায়গা বাছতে।

ভোরে ঘুম থেকে উঠে পড়ুন

ছুটির দিনে ঘুরতে গেলে তো কোনো নিয়ম থাকে না। কিন্তু ভোরবেলায় ঘুম থেকে ওঠাই যায়। ভোরবেলা উঠে একটু না হয় হোটেলের সামনের রাস্তা দিয়ে হেঁটে আসবেন। আধঘন্টা হাঁটলেও কিন্তু যথেষ্ট। এতেও আপনার ক্যালোরি ঝরানোর পাশাপাশিও অনেক সুবিধা আছে। যেমন ভোরবেলার সৌন্দর্য আপনি উপভোগ করতে পারবেন। আবার যদি ভালো জায়গা থেকে সূর্যোদয় দেখতে চান, তা হলে সেখানে হেঁটে গিয়ে সূর্যোদয় দেখে আবার একটু হেঁটে ফিরে আসুন হোটেলে।

সকালের ব্যায়াম ছাড়বেন না

আমরা আজকাল বেশ স্বাস্থ্যসচেতন হয়েছিল। শরীর ঠিক রাখতে অনেকেই সকালে নিয়মিত ব্যায়াম করি। বেড়াতে গিয়ে মাঝেমাঝে রেগুলার রুটিনের এ-দিক ও-দিক হয়ে যায়। আর যা-ই হোক সকালের শারীরিক কসরতটা ছাড়বেন না। আসন বা প্রাণায়াম বা ফ্রি হ্যান্ড বা যোগব্যায়াম, যে যা-ই করুন, সেটা নিয়মিত করে যাবেন। 

খাওয়াদাওয়া বুঝেসুঝে করুন

ঘুরতে গিয়ে সেখানকার বিশেষ পদ তো চেখে দেখতেই হবে, তবে পরিমিত আহার করুন। ভালো লাগছে বলে একগাদা খেয়ে নিলেন, সেটা করবেন না। বেশি খেয়ে নিলে কিন্তু আর নতুন কোনো পদের স্বাদ নিতে পারবেন না। আর নতুণ যা-ই খান, সেটা খান প্রাতরাশ বা মধ্যাহ্নভোজনে। এর পর সারা দিন ঘোরাঘুরি করলে, খাওয়ার ফলে যে ক্যালোরি জমে, তা পোড়ানোর সুযোগ থাকে।

লাইনে দাঁড়িয়ে ফ্রি হ্যান্ড

ঘুরতে গিয়ে অনেক জায়গাতেই হয়তো লাইনে দাঁড়াতে হয়। ট্র্যাভেল এজেন্সির অফিসের সামনে, বা কোনো দর্শনীয় স্থানের টিকিট কাউন্টারে বা কোনো দর্শনীয় স্থানে প্রবেশ ফটকে লাইন তো দিতেই হয়।  এই সময় এই লাইনে দাঁড়িয়ে একটু ফ্রি হ্যান্ড করে নিতে পারেন। শরীরটা ঝরেঝরে থাকবে।

এই ভাবে কিছু নিয়ম মেনে চললে দেখবেন বেড়ানোর আনন্দটাই অন্য রকম লাগবে। বেড়াতে গিয়ে আপনার শরীর আপনাকে অস্বস্তিতে ফেলবে না।

Leave a Reply