ঘরে বসে মানসভ্রমণ: সবুজ পাহাড়ের কোলে চিসাং

ভ্রমণ অনলাইন ডেস্ক: লকডাউনের জেরে আপনারা রয়েছেন ঘরবন্দি, আর ভ্রমণ অনলাইন জুগিয়ে চলেছে সেই সব জায়গার ঠিকানা, যেখানে ট্যুরিস্টদের পা পড়ে না সচরাচর। পড়ুন আর উপভোগ করুন। এবং মাথায় রেখে দিন ভবিষ্যৎ-ভ্রমণের গন্তব্য হিসাবে।

আরও পড়ুন: ঘরে বসে মানসভ্রমণ: ‘ছোটোনাগপুরের রানি’ নেতারহাট

মানসভ্রমণে আজ চলুন চিসাং-এ। ঝালং-বিন্দু-পারেন তো বহু পরিচিত, এ বার না হয় চলুন ডুয়ার্সের অল্প চেনা এই গন্তব্যে।

উপভোগ করুন

ব্যস্ত জীবনের অবকাশে অনাবিল আনন্দে দিন কয়েকের ছুটি কাটাতে চলুন চিসাং, কালিম্পং জেলায় ৫০০০ ফুট উচ্চতায় ভুটান সীমান্ত লাগোয়া নিরিবিলি পাহাড়ি গ্রাম। ওখানে একটা ঝরনাও আছে, নাম চিসাংখোলা। এর থেকেই গ্রামের নাম চিসাং।   

‘গেলাম-দেখলাম-ফিরে এলাম’, এই তত্ত্বে যাঁরা বিশ্বাস করেন না, তাঁদের ছুটি কাটানোর আদর্শ জায়গা চিসাং। যাঁরা ফোন থেকে দূরে থাকতে চান, তাঁদের ছুটি কাটানোর আদর্শ জায়গা চিসাং। তড়িঘড়ি ট্যুর যাঁরা পছন্দ করেন না, তাঁদের জন্য চিসাং।

সাক্ষী সূর্যোদয়। দ্য ওয়াইল্ডউডস রিট্রিট থেকে।

পাহাড়, সবুজ গাছগাছালি আর হরেক রকম পাখির কুজন চিসাং-এ আপনাকে স্বাগত জানাবে। হাত বাড়ালেই ভুটানের পাহাড়, নভেম্বর থেকে এপ্রিল পর্যন্ত যার শীর্ষদেশ বরফে মোড়া থাকে। সেই পাহাড়ের কোলে অসাধারণ সূর্যোদয়ের সাক্ষী থাকুন।

এলাচের জঙ্গলে হাঁটাহাঁটি করুন, হাত বাড়িয়ে স্কোয়াশ তুলে নিন আর নানা ওষধি গাছের সঙ্গে পরিচিত হন।

ফোর হুইল গাড়ি নিয়ে ঘুরে আসুন দ্রুক থেক সাম চোলিং মন্যাস্টেরি, আর দাবাইখোলা নদী। নদীর ও পারেই ভুটান। বরফঠান্ডা জলে অল্প স্রোত ঠেলে পায়ের পাতা ডুবিয়ে চলে যান ও পারে, ভুটানের মাটি ছুঁয়ে আসুন। স্থানীয় মানুষরা বলেন, দাবাইখোলার জলের ওষধি গুণ আছে, তাই তো নাম দাবাইখোলা বা দাওয়াইখোলা। নদীর পাড়ে জমিয়ে পিকনিক করুন।      

দাবাইখোলা।

কাছেপিঠেই রয়েছে ঝালং-পারেন-বিন্দু। ঘুরে আসুন ডুয়ার্সের অতি পরিচিত এই তিন পর্যটনকেন্দ্র থেকে।    

কী ভাবে যাবেন

চিসাং-এ কাছের রেলস্টেশন নিউ মাল। কলকাতা থেকে নিউ মাল যাওয়ার ট্রেন কাঞ্চনকন্যা এক্সপ্রেস, রোজ শিয়ালদহ থেকে ছাড়ে রাত সাড়ে ৮টায়, নিউ মাল পৌঁছোয় পরের দিন সকাল সাড়ে ৯টায়। নিউ মাল থেকে চিসাং ৫৪ কিমি, গাড়ি ভাড়া করে চলে আসুন।

বরফে মোড়া ভুটানের পাহাড়। দ্য ওয়াইল্ডউডস রিট্রিট থেকে।

তা ছাড়া নিউ জলপাইগুড়ি স্টেশন দেশের সব বড়ো জায়গার সঙ্গেই ট্রেনপথে যুক্ত। কলকাতা থেকেও নিউ জলপাইগুড়ি যাওয়ার প্রচুর ট্রেন আছে। নিউ জলপাইগুড়ি থেকে চিসাং ১১১ কিমি, গাড়ি ভাড়া করে চলে আসুন।

আর সে রকম লং ড্রাইভে যাওয়ার নেশা থাকলে গাড়িতেই কলকাতা থেকে চলুন চিয়াং, ৬৬১ কিমি। তেমন বুঝলে শিলিগুড়িতে একটা রাত কাটিয়ে যেতে পারেন।

ট্রেনের বিশদ তথ্যের জন্য দেখুন erail.in

কোথায় থাকবেন

থাকার জন্য রয়েছে ‘দ্য ওয়াইল্ডউডস রিট্রিট’, যোগাযোগ ৮৯০০৩৭০৮০১। হোয়াটস অ্যাপ ৮২৫০৩১৭৫১১

দ্য ওয়াইল্ডউডস রিট্রিট।

জেনে রাখুন

আগে থেকে বলে রাখলে স্টেশন থেকে পিক আপ এবং স্টেশনে পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করে ‘দ্য ওয়াইল্ডউডস রিট্রিট’। চিসাং এবং তার আশেপাশে ঘোরার জন্যও গাড়ির ব্যবস্থা করে দেয় তারা।

ছবি সৌজন্যে: ‘দ্য ওয়াইল্ডউডস রিট্রিট’      

Leave a Reply